DBC News
‘শিক্ষিত জাতি ছাড়া ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়া সম্ভব নয়’

‘শিক্ষিত জাতি ছাড়া ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়া সম্ভব নয়’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শিক্ষিত জাতি ছাড়া ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত দেশ গড়া সম্ভব নয়’।  শনিবার বিকেলে বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রে স্বায়ত্বশাসিত ও সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের প্রথম জাতীয় সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাধীনতাসহ আমাদের সব আন্দোলনের পেছনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে।' আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকা কালে শিক্ষাসহ সব ক্ষেত্রে উন্নয়ন করলেও ২০০১ সালে সরকার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে তা পিছিয়ে যায় বলেও উল্লেখ করেন তিনি। 

আওয়ামী লীগ দেশের জন্য কাজ করে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, 'ক্ষমতাকে যারা ভোগের বস্তু আর ব্যবসার উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে তারা কখনই দেশের উন্নয়ন করতে পারে না।'

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, 'গবেষণা ও শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য সরকার সব ধরনের ব্যবস্খা নেবে সরকার। এছাড়া এরই মধ্যে শিক্ষকদের বেতন ভাতাসহ সব ধরনের সুযোগ বাড়ানো হয়েছে।' আর শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য যা যা করা প্রয়োজন তার সবই করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী । 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'বর্তমানে আমাদের ১৫১টা বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। যেখানে ৪৮টা পাবলিক ও ১০৩টা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এখন যেসব জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় নেই সেসব জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় করে দেব। উদ্দেশ্য একটাই আমাদের ছেলেমেয়েরা যেন ঘরে বসে শিক্ষাটা পায়।'

শেখ হাসিনা বলেন, 'সরবার কারিগরি শিক্ষা ও বিজ্ঞান শিক্ষাকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণা দিয়ে বসে না থেকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার জন্য যাযা করার তার সব কিছু্ই করছি।'

'সরকারের এই মেয়াদের শেষ সংসদ অধিবেশন কাল বসবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী  বলেন, আবার ক্ষমতায় আসতে পারলে শিক্ষকদের দাবি বিবেচনা করা হবে।

বক্তব্য প্রধানমন্ত্রী বলেন, ড. ইউনুসের কারসাজিতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধ হওয়ার পরও পদ্মাসেতুর মতো এতোবড় প্রকল্প সফল ভাবে সম্পন্ন হচ্ছে।  এই কাজ করতে গিয়ে তাঁর বোন, ছেলে-মেয়ে নানা ধরনের সমস্যার মুখে পড়েছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

এ সময় জনগণের কাছে নৌকায় ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে আবারও নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন দৃশ্যমান হবে।

আরও পড়ুন

অকেজো সিগনাল, অসহায় ট্রাফিক!

হাতের ইশারায় চলছে ট্রাফিক সিগন্যাল। গাড়ি থামানো গেলেও, পথচারীকে থামাতে পারছে না পুলিশ। ফুটওভার ব্রিজের নিচ দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে মানুষ পার হচ্ছে ব্যস্ত সড়ক। আর এখন পর...

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বরখাস্ত হওয়া হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল দম্পতি লাপাত্তা

দেশে-বিদেশে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের মালিক স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বরখাস্ত হওয়া হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আবজাল হোসেন ও তার স্ত্রী রুবিনা খানম এখন লাপাত্তা। বিদেশযাত্র...

নন-এমপিও শিক্ষকদের বিক্ষোভ; সড়ক অবরোধ

পুলিশের বাধার মুখে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সড়কের একাংশ অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগু‌লোর শিক্ষকরা। প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের উদ্দেশ...

ডাকসুর পর চাকসু নির্বাচনের সিদ্ধান্ত

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ-চাকসু নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বুধাবার, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট ও প্রক্টোরিয়...