DBC News
সংসদ সদস্য হতে চান শীর্ষ ব্যবসায়ীরা

সংসদ সদস্য হতে চান শীর্ষ ব্যবসায়ীরা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চান বেশ দেশের কয়েকজন শীর্ষ ব্যবসায়ী। নিজের উদ্যমী মানসিকতা আর পরিশ্রম দিয়ে সফল হওয়া এসব ব্যবসায়ীর স্বপ্ন সংসদ সদস্য হিসেবে সামাজ ও অর্থনৈতিতে অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখার। তবে, নির্বাচন পর্যবেক্ষকরা বলছেন, কেবল আর্থিক সক্ষমতার বিচারে ব্যবসায়ীদের দলীয় মনোনয়ন দেয়া উচিত হবে না।

জাতীয় সংসদে ব্যবসায়ীর সংখ্যা দিনদিন বাড়ছেই। ১৯৭৯ সালে দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ সদস্যদের ২৮ ভাগ ছিলেন ব্যবসায়ী। দশম সংসদ নির্বাচনে তা বেড়ে হয়েছে ৫১ শতাংশে। আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও প্রার্থী হতে চান প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীরা।

এই দৌড়ে আছেন, তৈরি পোশাক ব্যবসায়ীদের নেতা এস এম মান্নান কচি, মোহাম্মদ নাসির, আসলাম সানি, স্বর্ণ ব্যবসায়ী দিলীপ কুমার আগারওয়াল, পুঁজিবাজার ও বীমাখাতের ব্যবসায়ী আহসানুল ইসলাম টিটু, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ী সুব্রত সরকার, শিক্ষাবিদ ও আবাসন ব্যবসায়ী আবু ইউসুফ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, উইম্যান চেম্বারের সভাপতি সেলিমা আহমাদসহ প্রায় ২০ জন ব্যবসায়ী।

এ বিষয়ে কুমিল্লা-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী উইম্যান চেম্বারের সভাপতি সেলিমা আহমাদ বলেন, 'সংসদ সদস্যরা যে আসলেই জনগণের কল্যাণ নিয়ে আসতে পারে এবং এলাকার উন্নয়ন করতে পারে তেমন একটা উদাহরণ হতে চাই। যেভাবে আমি ব্যবসার ক্ষেত্রে হয়েছি।'

আর চট্টগ্রাম-১২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চাওয়া মোহাম্মদ নাসির বলেন, 'যুব সমাজ, ছাত্র সমাজ এবং এলাকার সকল স্তরের জনগণ যেভাবে পটিয়াকে দেখতে চায় বা আলোকিত পটিয়া হিসেবে গড়ে তুলতে চায় সে বিষয় নিয়ে আমি এগিয়ে যাচ্ছি।'

প্রার্থী হতে চাওয়া এসব ব্যবসায়ীদের অনেকেই শিক্ষা জীবন থেকে রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। তাদেরই একজন চুয়াডাঙ্গা-১ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী দিলীপ কুমার আগরওয়াল। তিনি জানান, 'আমাদের সামাজিক একটা দায়বদ্ধ্বতা আছে, আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করেছি তখন থেকেই ছাত্ররাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম।'

জনকল্যাণের জন্য রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার এ ধারাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন এফবিসিসিআই এর সভাপতি।

ব্যবসায়ীদের সংসদ সদস্য হতে চাওয়া বা প্রার্থী হতে চাওয়া সম্পর্কে এফবিসিসিআই এর সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, 'যে মানুষটা রাজনীতিতে যাচ্ছেন, তার স্বার্থ হওয়া উচিত দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হওয়া। যদি যোগ্যতম লোকগুলো যোগ্য জায়গায় যায় তাহলে তো অসুবিধার কিছু নাই।'

তবে অর্থনীতিবিদ ও নির্বাচন বিশ্লেষকরা বলছেন, 'কেবল আর্থিক সামর্থ্য বিবেচনায় ব্যবসায়ীদের দলীয় মনোনয়ন দেয়া ঠিক হবে না। এ প্রসঙ্গে পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ- পিআরআই এর নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর জানান, 'সব পেশা থেকেই রাজনীতিতে আসতে হবে। তবে যারা আসছেন তাদের মনোবৃত্তি টা যেন সঠিক হয়।'

তিনি বলেন 'নিজের ব্যবসাকে বড় করার জন্য ব্যবসায়ীরা যেন রাজনীতিতে না আসে। দেশকে বড় করার জন্য যদি রাজনীতিতে আসেন, তাহলে অবশ্যই তারাও আসতে পারেন।'

ব্যবসায়ীদের নির্বাচনে মনোনয়ন চাওয়া প্রসঙ্গে দেশের অন্যতম প্রধান পর্যবেক্ষণ সংস্থা 'জানিপপ'-এর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, 'রাজনৈতিক দলগুলো যখন মনোনয়ন প্রদান করে তখন শুধুমাত্র তাদের আর্থিক সক্ষমতা বিবেচনা না করে তার শিক্ষাগত যোগ্যতা, জনপ্রিয়তাসহ আনুষাঙ্গিক বিষয়গুলোও যেন পরিপূর্ণভাবে বিবেচনায় নেয়া হয়।'

প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীরা যদি সংসদ সদস্য হন, তবে দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে বলেও মনে করেন এই নির্বাচন পর্যবেক্ষক।

আরও পড়ুন

বগুড়ায় ভোটের পর সব ভোট হবে ইভিএমে: সিইসি

বগুড়া ৬ আসনে উপ-নির্বাচনের পর পরবর্তী সকল নির্বাচনে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। বুধবার বগুড়া জেলা প্রশাসকের স...

'দুঃসময়ের নেতাকর্মীদের মূল্যায়ণের আহ্বান'

নিজের লোক নয়, কমিটিতে দুঃসময়ের নেতাকর্মীদের মূল্যায়ণ করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। একই সঙ্গে, দলের মধ্যে সব রকমের কোন্দল দূর...

চট্টগ্রাম বন্দরে আমদানি পণ্যে বেআইনি ফি নেয়ার অভিযোগ

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে ফি আদায়ের অভিযোগ করেছেন আমদানিকারকরা। তাদের অভিযোগ, এলসির শর্ত অনুযায়ী, আমদানি করা পণ্য সর্বশেষ গন্তব্য কমলাপুর...

রাজস্বের লক্ষ্য পূরণ হচ্ছে না চট্টগ্রাম কাস্টমসে

চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আয়ে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ১৫ হাজার ৪৬২ কোটি টাকা পিছিয়ে রয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টমস। পণ্য আমদানি কমে যাওয়া, বন্ড সুবিধার অপব্যবহার, আন্ডার ই...