DBC News
কর্মক্ষেত্রে নারীবান্ধব কর্মপরিবেশ তৈরির বিকল্প নেই

কর্মক্ষেত্রে নারীবান্ধব কর্মপরিবেশ তৈরির বিকল্প নেই

এক দশকে নারী শিক্ষা ও ক্ষমতায়নে অনেকটা পথ হেঁটেছে বাংলাদেশ। একদিকে, পুরুষের তুলনায় বেড়েছে শিক্ষার হার, অন্যদিকে অর্থনীতিতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অবদান রাখছেন আজকের নারীরা। এই উন্নয়নযাত্রায় নারীর প্রতি সংহিসতা- কাঙ্ক্ষিত সাফল্য অর্জনের অন্তরায় বলে মনে করেন, মানবাধিকারকর্মীরা।  আর অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে ঝরে পড়া ঠেকাতে নারীবান্ধব কর্ম পরিবেশ তৈরির বিকল্প নেই বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা।

১০ বছর আগেও চিত্রটা ছিলো উল্টো। পুরুষ আর নারীর শিক্ষার হারের অনুপাত ছিলো ৬৫ আর ৩৫।  এখন অনুপাত পাল্টে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৭ আর ৫৩-তে।  নারী শিক্ষার হারে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে ১০৯তম। কিন্তু উচ্চতর শিক্ষায় নারীর অবস্থান এখনও অনেক পিছিয়ে।

শিক্ষাবিদ অধ্যাপক কায়কোবাদ বলেন, 'উপবৃত্তির অর্থ মায়ের মোবাইল ব্যাংকে এ জমা হচ্ছে। এখানে কোন কারচুপি হচ্ছে না। এই ধরনের আরও অনেক ইতিবাচক উদ্যোগ নিয়ে নারীর শিক্ষাকে এগিয়ে নেয়া দরকার। তবে উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে পুরুষদের তুলনায় এখনও মহিলারা পিছিয়ে।'  

নারী শিক্ষার অগ্রগতি অর্থনীতিতে শক্তিশালী অবস্থান এনে দিয়েছে। এখন দেশের শ্রমবাজারের ৩৬ শতাংশ নারী। নারী উদ্যোক্তা তৈরি এবং উন্নয়নের জন্য বাজেটের প্রায় ৩০ভাগ বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। তবে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে নারীদের ঝরে পড়া ঠেকানোই এখন মূল চ্যালেঞ্জ। 

অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ বলেন, 'আশি ও নব্বই দশকে নারীরা যে সব ক্ষেত্রে কাজ করতে শুরু করে তার চাইতে গত ১০ দশ বছরে নারীরা কর্পোরেট আথবা রেমুনারেটিভ খাতে অনেক বেশি কাজ করতে এসেছে। শিক্ষিত নারীদের শ্রমবাজারে আংশগ্রহণ বেড়েছে। নারীর অগ্রযাত্রা আরও বেশি দ্রুততর করতে হলে, তাদের সাপোর্ট সিস্টেমকে সহক করার উদ্যোগই নেয়া উচিত।' 

স্বাধীনতার পর নারী জাগরণের যে জোয়ার তৈরি হয়েছিলো, তা থমকে যায় ৭৫-এর পর।  দীর্ঘ প্রতিবন্ধকতার পথ পেরিয়ে, বিগত এক দশকে আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছেন নারীরা। এখন দেশের সরকারপ্রধানসহ মন্ত্রিসভায় আছেন ৫জন নারী। আর জাতীয় সংসদে ৫০টি সংরক্ষিত আসনের পাশাপাশি সরাসরি ভোটে নির্বাচিত রয়েছেন ২৩ জন নারী সদস্য। রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে ১৫৫টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৭ম। 

মানবাধিকার কর্মী রোকেয়া কবির বলেন, 'নারীরা যে দক্ষতা নিয়ে কাজে যোগ দিচ্ছে সেখানে যদি ডিজায়াবেলিং এনভায়রনমেন্ট থাকে তবে তারা সে কাজটি করতে পারবে না। ডিজায়াবেলিং এনভায়রনমেন্টকে এবিলিং এনভায়রনমেন্টে পরিণত করতে, আমাদেত সরকারি বেসরকারি সকল শক্তিকে উদ্যোগ নিতে হবে।' 

নারী-পুরুষ সমতায় দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান প্রথম। নারীর এই অগ্রযাত্রা বেগবান করতে, সংহিসতা প্রতিরোধ এবং সহায়ক পরিবেশ নিশ্চিতের কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন

প্রস্তুত ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’

অবশেষে ঢাকা-পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে স্বল্প বিরতির আন্তঃনগর ট্রেন ‘পঞ্চগড় এক্সপ্রেস’। শনিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ট্...

'লঞ্চ, ট্রেন ও বাস স্টেশনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে'

ঈদযাত্রা হয়রানিমুক্ত করতে লঞ্চ, ট্রেন ও বাস স্টেশনে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া...

বর্ষার আত্মহত্যা: ওসির বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ

স্কুল ছাত্রী সুমাইয়া আকতার বর্ষার অপহরণ মামলা নিতে দায়িত্বে অবহেলা এবং সময়ক্ষেপনের অভিযোগ উঠেছে রাজশাহীর মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হোসেন...

মাকে বেডে তোলায় ছেলেকে পেটালেন ডাক্তার!

অসুস্থ মাকে ফ্লোর থেকে হাসপাতালের বেডে তোলায় ছেলেকে পেটালেন বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার আনোয়ার উল্লাহ। আহত মো. জিলানী পাথরঘাটা উপজেলা...