DBC News
তামিম-সৌম্য ঝড়ে ক্যারিবীয়দের ৫১ রানে হারালো বিসিবি একাদশ

তামিম-সৌম্য ঝড়ে ক্যারিবীয়দের ৫১ রানে হারালো বিসিবি একাদশ

ওয়ানডে সিরিজের আগে একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে বিসিবি একাদশের কাছে ৫১ রানে হেরেছে সফরকারী উইন্ডিজ। বিকেএসপিতে টস জিতে আগে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩৩১ রান করে ক্যারিবীয়রা। জবাবে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের সেঞ্চুরিতে ৪১ ওভারে ৬ উইকেটে ৩১৪ রান করার পর আলোর স্বল্পতায় খেলা বন্ধ করে দেন আম্পায়াররা। এতে ডাক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ৫১ রান ম্যাচ জেতে বিসিবি একাদশ।

বিকেএসপিতে ক্যারিবীয় ঝড়, টেস্ট হারের জ্বালা জুড়াতে সফরকারীদের ওপেনিং পার্টনারশিপ ১০১ রানের। ৪৩ রান করে নাজমুল ইসলামের বলে ফেরেন কাইরন পাওয়ায়েল, দুই নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ড্যারেন ব্রাভোকে ব্যক্তিগত ২৪শে প্যাভিলিয়ন মুখি করেন পেসার মেহেদী হাসান রানা।

১৫৯ রান তুলতে ২ উইকেট হারালে থামানো যায়নি শাহ হোপের ব্যাট, থামেন ৮১ রান যোগ করে। মারলন স্যামুয়েলসকে দ্রুত ফিরিয়ে রানের চাকা নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা বিসিবি ক্যাপ্টেন মাশরাফির। তবে ক্যারিবীয়দের সংগ্রহ দাড়ায় বিশাল। গা-গরম ম্যাচে ৮ উইকেটে ৩৩১ রানে থামে উইন্ডিজ। ২টি করে উইকেট রুবেল, নাজমুল অপু ও মেহেদী হাসান রানার। মাশরাফি ও শামিম পাটওয়ারী পান একটা করে।

ইনজুড়ির ধকল কাটিয়ে মাঠে ফিরেই ৩৩২ রানের চ্যালেঞ্জের সামনে তামিম। ওপেনিংয়ে সঙ্গী ইমরুল কায়েস। ৮১ রানের জুটি ভাঙে ২৭ রান করে ইমরুল ফিরলে। তার আগেই ফিফটি নিশ্চিত হয় তামিমের।

সৌম্য-তামিমের দ্বিতীয় উইকেটে ১১৪ রানের জুটি। সেঞ্চুরি হাকান তামিম। ১০৭ রানের ইনিংসে বাহারী স্ট্রোকে বল ব্যাটে নিয়েছেন ৭৩বার, যার ১৩টি বাউন্ডারি আর চার ওভার বাউন্ডারি।

দলীয় ১৯৫ এ তামিমের ফেরার পর সৌম্যর পালা, এই বাহতিও পান সেঞ্চুরী, ৮৩ বলে ৭ চার আর ৬ ছক্কায় করেন ১০৩ রান, থাকেন অপরাজিত।

বিসিবি একদাশের সংগ্রহ তখন ৪১ ওভারে ৬ উইকেটে ৩১৪, আলোর স্বল্পতার  বন্ধ হয় খেলা। ডিএল মেথডে বিসিবি একদাশ জয়ী ৫১ রানে।