DBC News
অবরোধ তুলে নিয়েছেন পোশাক শ্রমিকরা

অবরোধ তুলে নিয়েছেন পোশাক শ্রমিকরা

ন্যূনতম মজুরি বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন দাবিতে ঢাকার প্রবেশমুখ বিমানবন্দর সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করা শ্রমিকদের কর্মসূচি আজকের মতো তুলে নেয়া হয়েছে। পুলিশ তাদের সরিয়ে দিলে, বিমানবন্দর সড়ক আবারও সচল হয়।

এর আগে, বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে আজও রাজধানীর বিমানবন্দর ও গাজীপুরের তারাগাছ এলাকায় সড়ক অবরোধ করেন, পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ সময় পুলিশের টিয়ারশেলে আহত হন বেশ কয়েকজন শ্রমিক।

আজ সোমবার সকালে, উত্তরায় বিমানবন্দর সড়ক অবরোধ করেন বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা। এ সময় পুলিশের বাধার মুখে পড়েন তারা। কিন্তু তা উপেক্ষা করেই, আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন পোশাক শ্রমিকরা। এর আগে, গতকাল রবিবার উত্তরার বিভিন্ন কারখানার পোশাক শ্রমিকরা বেতন বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলনে নামেন।

বিমানবন্দর জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মিজানুর জানান, ‘সকাল ৯টায় পর থেকে শ্রমিকরা রাস্তায় জড়ো হতে থাকে। রবিবার তারা যে দাবি নিয়ে রাস্তায় নেমেছিল একই দাবি নিয়ে আজও তারা স্লোগান দিচ্ছে। বেলা সোয়া ১২টা থেকে আজমপুর, জসিমউদ্দিন ক্রসিং এবং বিমানবন্দর সড়কে যান চলাচল একেবারেই বন্ধ রয়েছে।'

ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানান হয়েছে, শ্রমিকরা রাস্তায় অবস্থান নেওয়ায় সকাল ১১টায় পর উত্তরার আজমপুরে প্রথমে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এরপর বেলা সোয়া ১২টা থেকে বিমানবন্দরের সামনেও যান চলাচল বন্ধ হয়।

রবিবার উত্তরার বিভিন্ন গার্মেন্টস-এর শত শত শ্রমিক উত্তরার আজমপুর থেকে জসিমউদ্দিন ক্রসিং পর্যন্ত অবস্থান নিয়ে অচল হয়ে পড়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক। পাঁচ ঘন্টা পর দুপুর ২টার দিকে তারা রাস্তা থেকে উঠে যাওয়ার আগে সোমবার ফের বিক্ষোভের ঘোষণা দিয়েছিলেন। সেই ঘোষণা অনুযায়ীই তারা সোমবার সকালে রাস্তায় নামেন।

এদিকে, একই দাবিতে গাজীপুরের তারাগাছ এলাকায়, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন পোশাক শ্রমিকেরা। পুলিশ জানায়, আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৯টা গাজীপুরের মালেকেরবাড়ী এলাকায় বেতন-ভাতা বাড়ানোর দাবিতে, মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন  গার্মেন্ট শ্রমিকেরা। এ সময় পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে বেশ কয়েকজন শ্রমিক আহত হন।

এই ঘটনায় প্রায় দেড় ঘন্টা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক বন্ধ থাকে। বেলা ১২টার দিকে যান চলাচল স্বভাবিক হয়।

এদিকে, শ্রমিকদের বিক্ষোভের কারণে বিমানবন্দর সড়কে দেখা দিয়েছে ব্যাপক যানজট। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন, সাধারণ মানুষ। তবে বকেয়া বেতন-ভাতা বাড়ানোর ব্যাপারে মালিক পক্ষ থেকে কোন সাড়া না পাওয়ায়, আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন শ্রমিকরা।

আরও পড়ুন

বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি প্রশংসার যোগ্য: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক পরিস্থিতি নিয়ে সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশি নারী প্রিয়া সাহা যে তথ্য উপস্থাপন করেছেন তা সঠিক নয় বলে মনে...

লন্ডন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

সরকারি সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন পৌঁছেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লা...

পাচারের অর্থ ফেরত আনতে পারছে না বাংলাদেশ

অর্থপাচার তদন্তে দুর্নীতি দমন কমিশন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডসহ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান থাকলেও পাচার হওয়া অর্থ ফেরত আনা যাচ্ছে না। শনাক্ত হচ্ছে না অর্থপাচারকারীরাও। কার্যক...

'আর কোন ডেমু ট্রেন না কেনার সিদ্ধান্ত'

আর কোনো ডেমু ট্রেন কিনবে না বাংলাদেশ। তবে, ডেমু ট্রেন ছাড়া নতুন কোনো ট্রেন কেনার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেইসঙ্গে, ঢাকা থেকে কালিয়াকৈর পর...