DBC News
হারকিউলিস নিয়ে রহস্যে পুলিশও

হারকিউলিস নিয়ে রহস্যে পুলিশও

ধর্ষকের মৃতদেহ উদ্ধার আর সঙ্গে থাকা চিরকুট নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে খোদ পুলিশের মধ্যে। বিশেষ করে চিরকুটে থাকা হারকিউলিস নামের রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ সদরদপ্তর। মানবাধিকার কর্মী ও নারী নেত্রীরা বলছেন, আইনের শাসন দিয়েই ধর্ষণের ঘটনা মোকাবিলা করতে হবে, বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড কোনো সমাধান হতে পারে না।

ঝালকাঠির কাঠালিয়া থেকে গত ২৬শে জানুয়ারি সজল জোমাদ্দর নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তার শরীরে বাধা চিরকুটে লেখা, ‘আমার নাম সজল। আমি ধর্ষক। ইহাই আমার পরিণতি।’

এরপর গত ১লা ফেব্রুয়ারি একই জেলার রাজাপুর থেকে রাকিব নামের আরেক যুবকের মরদেহ পাওয়া যায়। তার শরীরে থাকা চিরকুটে লেখা, ‘আমি রাকিব, আমি ভাণ্ডারিয়ার মাদ্রাসা ছাত্রীর ধর্ষক। ইহাই একজন ধর্ষকের পরিণতি। ধর্ষকরা সাবধান...হারকিউলিস।’

তারও আগে গত ১৯শে জানুয়ারি সাভারের খাগান এলাকার একটি মাঠ থেকে রিপন নামের আরেক যুবকের মরদেহ। তার সঙ্গে পাওয়া চিরকুটে রেখা ছিল 'আমি ধর্ষণ মামলার মূল হোতা'।

ঝালকাঠিতে নিহত দুইজনের স্বজনদের দাবি, এমন হত্যাকাণ্ড নয়, আইনের মাধ্যমেই শাস্তি দোষী হলে শাস্তির। নিহত রাকিবের পিতা আবুল কামাল মোল্লা বলেন, 'সে যদি দোষী সাব্যস্ত হয়। আইনে যা হয় আমি মেনে নেব। আইন বর্হিভুত হত্যাকান্ড মেনে নিতে পারছি না। মেনে নেয়ার মতো না।' নিহত সজলের পিতা মো: শাহ আলম জোমাদ্দার বলেন, 'আমার ছেলে হত্যার সঠিক বিচার চাই।'

মরদেহের সঙ্গে চিরকুট এবং তাতে থাকা হারকিউলিস নামটি আলোচনার জন্ম দিয়েছে খোদ পুলিশের মধ্যেও। ঝালকাঠি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (রাজাপুর সার্কেল) মো: মোজাম্মেল হোসেন বলেন, 'এ রহস্য উদঘাটনে আমরা তৎপর। কোনও দুস্কৃতিকারী অথবা সংঘবদ্ধ চক্র এটা করতে পারে। জড়িতদের অচিরেই গ্রেপ্তার করা হবে এবং এর রহস্য উদঘাটন করা হবে।'

পুলিশ সদরদপ্তরও এই হারকিউলিস রহস্য উদঘাটনের অপেক্ষায় রয়েছে। পুলিশ সদরদপ্তর ডিআইজি (মিডিয়া অ্যান্ড প্লানিং) এস এম রুহুল আমীন জানান, 'পুলিশ সদর দপ্তর থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আশা করছি অল্প কিছুদিনের মধ্যে এ রহস্য উদঘাটন হবে।'

মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমানের মতে, এই রহস্য দূর না হলে প্রশাসনের ওপর সন্দেহ থেকেই যাবে। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান আরও বলেন, খুঁজে বের করে যদি দেখাতে পারেন যে এরা হচ্ছে হারকিউলিস, এরা অপরাধী, তাহলে জনমনে স্বস্তি ফিরে আসবে। আর আইন-শৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দাবি, যে তাদের সঙ্গে এর কোনো সম্পৃক্ততা নাই। তখন এটা প্রমাণিত হবে।'

আর মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়শা খানম মনে করেন, বিচারবহির্ভূত হত্যা নয়, ধর্ষণের মত অপরাধের সমাধান করতে হবে আইনের শাসন দিয়েই।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি আয়শা খানমের মতে, 'আমরা এ ধরণের প্রক্রিয়াকে কোন ভাবেই সমর্থন করি না। এটি কিন্তু ভীতি তৈরি করবে। ভয়ের প্রক্রিয়া দিয়ে কোনও ধরণের মানবিক সংস্কৃতি, গণতান্ত্রিক সংস্কৃতি সৃষ্টি হবে না।'

আরও পড়ুন

রংপুরে বাড়ছে নারী নির্যাতন

গত চার মাসে রংপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় নারী নির্যাতনের ঘটনায় ৪৭টি মামলা হয়েছে। যার মধ্যে ২৩টিই ধর্ষণ, ধর্ষণের চেষ্টা ও যৌন নিপীড়ন। বিচারহীনতা ও সচেতনতার অভাবে এসব...

তরুণী ধর্ষণ মামলায় দুই পুলিশ কর্মকর্তা ৬ দিনের রিমান্ডে

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় দু'দিন আটকে রেখে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে ৬ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে, জেলা জুডিশিয়াল ম্যা...

জঙ্গি সন্দেহে মালয়েশিয়ায় এক বাংলাদেশিসহ ছয়জন আটক

জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে মালয়েশিয়ায় এক বাংলাদেশিসহ ছয়জনকে আটক করেছে মালয়েশিয়ার পুলিশ। শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন দেশটির পুলিশ মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ ফ...

ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ হত্যার ঘটনায় ৩ জন গ্রেপ্তার

রাজধানীর ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী হত্যার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, নিউ মার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর...

মহাসড়কের বিপজ্জনক খুঁটি দ্রুত সরাতে হাইকোর্টের নির্দেশ

সারা দেশের সড়ক ও মহাসড়কে থাকা বিপজ্জনক খুঁটি দ্রুত সরানোর নির্দেশ দিয়েছেন, হাইকোর্ট। বিপজ্জনক অবস্থানে থাকা সব ধরনের খুঁটি আগামী ৬০ দিনের মধ্যেই অপসারণের ন...

নির্বাচনি ট্রাইব্যুনালে বিএনপি'র আরও ৫ মামলা

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগে ও নির্বাচিত প্রার্থীর বিজয় চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা করেছেন বিএনপির ৭২ প্রার্থী। ৩০শে ডিসেম্বরের নির্বাচনকে...