DBC News
বিপিএল চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা

বিপিএল চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা

বিপিএল ষষ্ঠ আসরের চ্যাম্পিয়ন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১৭ রানে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা জিতলো কুমিল্লা। ভিক্টোরিয়ানসদের দেয়া ২০০ রানের জবাবে ব্যাট করে ১৮২ রান তোলে ঢাকা।  তামিম ইকবাল খেলেন অপরাজিত ১৪১ রানের অনবদ্য এক ইনিংস।  আর এতে ম্যাচ সেরার পুরস্কার উঠেছে তামিমের হাতে। 

রংপুরের কাছে কোয়ালিফাইয়ার টুতে হেরে চোখের জলে গেল আসর থেকে বিদায় নিয়েছিল কুমিল্লা। এবারো চোখের জলেই শেষ। তবে এবারের অশ্রু আনন্দের, শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের।

অথচ শুরুটা কি দারুনভাবেই না নিয়েছিল ঢাকার পক্ষ। টস জিতে কুমিল্লাকে ব্যাটিংয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্তটা বুমেরাং হয়নি সাকিবের। রুবেলের বলে সেকেন্ড ওভারেই এলবির ফাদে এভিন লুইস।

রয়ে-শয়ে এগুচ্ছিলে তামিম আর বিজয়ও। কিন্তু ১০ ওভারের পরই হাত খুলেছেন দুবার জীবন পাওয়া তামিম।

দলীয় স্কোর শ ছাড়াবার আগেই দুর্ভাগ্যে কপাল পুড়েছে এনামুলের। সাকিবের বল প্যাডে লেগেছিল ২৪ রানে থাকতে। আর আম্পায়ার দিলেন আউট।

শুভ সুবিধে না করতে পারলেও ইমরুলকে সঙ্গি বানিয়ে বাকি গল্পটা নিজেই লিখেছেন তামিম। মিরপুরে তার ঝড়ে ওলট পালট রেকর্ড বুক। বিপিএলেতো বটেই টি টুয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরি; ৫০ বলে।

ইনিংসের শেষ অবদি ৬১ বলে ১৪১ রানের হার না মানা তামিম। আর ক্যাপ্টেন ইমরুল অরাজিত ১৭ রানে।

ইটের জবাবে পাটকেল ছুড়ছিল ঢাকা ডায়নামাইটস। অবশ্য শুরুটা ডাক মেরে নারিন ফিরলে হয়েছিল হোঁচট খেয়ে। ২য় উইকেটে দলকে রনি তালুকদারকে সঙ্গে করে টেনে নিয়ে যাচ্ছিলেন উপুল থারাঙ্গা। বাউন্ডারি আর ওভার বাউন্ডারিতে কুমিল্লার বোলারদের করেছেন দুজনে দিশেহারা।

ফিফটি থেকে দু রান দূরে থেকে পেরেরার শিকার থারাঙ্গা। তালুকদারের সঙ্গে ভাঙ্গলো একশ কুড়ি রানের দুর্বার জুটি। এ ম্যাচেও ব্যাট হাতে স্বরুপে ফিরতে পারেননি ক্যাপ্টেন সাকিব।

পরের ওভারেই ৩৮ বলে ৬৬ রান করা রনি ফেরেন এনামুলের অসাধারন থ্রোতে।

রনিকে হারিয়েই ট্র্যাক হারিয়েছে ঢাকা। পোলার্ড, রাসেল, সোহান, শুভাগত জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলতে ব্যর্থ সবাই। আর সফলতার হাসি কুমিল্লার ক্রিকেটারদের।