DBC News
শিশুপ্রহরে প্রাণবন্ত গ্রন্থমেলা

শিশুপ্রহরে প্রাণবন্ত গ্রন্থমেলা

শনিবার ছুটির দিনে, শিশু প্রহরে খুব জমেছিলো একুশে গ্রন্থমেলা। সন্তানদের বইমুখী করতে মা-বাবারা শিশুদের নিয়ে এসেছিলেন বইয়ের মেলায়। মেলায় শিশুদের জন্যে রয়েছে ভিন্ন চত্বর। সেখানে রূপকথা, কল্পকথা, ভূতের গল্প, ছড়া আর আঁকা-আঁকির বই দিয়ে সাজানো হয়েছে স্টলগুলো।

ইকরি, হালুম, শিকুর সিসিমপুর যেন শিশুদের কাছে তারকা চরিত্র। শিশুপ্রহরের এই আয়োজনে তাই সোহরাওয়াদী উদ্যানের বট তলাকে ঘিরে তাদের আনন্দ উচ্ছাস।

ছুটির দিন হিসেবে বরাবরের মতই সকাল ১১ টা থেকে ১ টা পর্যন্ত গ্রন্থমেলা উন্মুক্ত করা হয় শিশুদের জন্য। তাই মেলা প্রাঙ্গনে এই সময়টুকু বাড়তি আনন্দ তাদের কাছে।

সন্তানদের বইয়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে এসে নিজেদের জন্যও বই কিনেছেন অনেক অবিভাবক। তাই বেচাকেনাও ছিলো জমজমাট।

শিশুদের মনন বিকাশে শিশুপ্রহরের এমন আয়োজনকে স্বাগত জানিয়েছেন লেখকরাও। লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেন, 'বাচ্চাদেরকে বইয়ের প্রতি আগ্রহের জায়গায় সৃষ্টি করতে হবে।'

মেলার নবম দিন শিশুপ্রহর পর্যন্ত অমর একুশে গ্রন্থ মেলায় মোট শিশুতোষ বই জমা পড়েছে মোট ২৯ টি।

আরও পড়ুন

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্যে কনসার্ট

সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সহায়তায় রাজধানীতে অনুষ্ঠিত হলো চাইল্ড রাইটস অ্যাওয়ারনেস কনসার্ট। শুক্রবার সন্ধ্যায়, রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত এ কনসার্ট...

সাতই মার্চের ভাষণের ভাস্কর্যের উদ্বোধন

ঐতিহাসিক মুজিব নগর দিবসে উদ্ভাসিত হলো 'শিল্পের আলোয় সাতই মার্চের ভাষণ'। গ্রানাইট পাথরে সৃজনশীলতার মুন্সিয়ানায় ঊনসত্তর থেকে একাত্তরের অগ্নিঝরা দিন আর সাতই মার্চে...

শেষ হলো অমর একুশে গ্রন্থমেলা

শেষ হলো অমর একুশে গ্রন্থমেলা। তবে নানা দিক থেকে এবারের মেলা ছিলো অনন্য। মেলার আয়োজন, প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা, আর কেনা-বেচা সব কিছুতে রেকর্ড হয়েছে। আয়োজন নিয়ে খুশি...

দুই দিন বাড়ানো হল বই মেলার সময়

শেষ দিনে এসে অমর একুশে গ্রন্থমেলার সময় দু'দিন বাড়ানো হয়েছে। শেষ দু'দিন অমর একুশের গ্রন্থমেলা পড়েছিলো ঝড়-বৃষ্টির কবলে। তাই সময় বাড়ানোর দাবি ছিল সবার। এই দাবি মেন...