DBC News
তৃণমুল প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ অব্যাহত

তৃণমুল প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ অব্যাহত

জেলা আওয়ামী লীগ নেতাদের পাঠানো উপজেলা নির্বাচনের প্রার্থী তালিকা নিয়ে নানা অভিযোগ উঠেছে। দলীয় সভাপতির কার্যালয়ে লিখিতভাবে জমা পড়েছে বেশকিছু অভিযোগ। প্রার্থী তালিকায় মিলেছে এমপি-মন্ত্রীদের স্বজনপ্রীতি, মনোনয়ন বাণিজ্য, যুদ্ধাপরাধীর সন্তানদের নাম দেয়াসহ বিশৃঙ্খলার নানা তথ্য। অভিযোগ প্রমাণ হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

৪ঠা ফেব্রুয়ারি থেকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হলে তৃণমূলের নেতারা নানান অভিযোগের পাশপাশি অনেকেই লিখিত অভিযোগও জমা দেন। অভিযোগের মধ্যে আছে-

১.  নাম পাঠানোর ক্ষেত্রে মাঠের জনপ্রিয়, সৎ ও ত্যাগীদের বঞ্চিত করা

২. বর্ধিত সভা ও ভোটাভুটি না করে একক ক্ষমতাবলে নাম পাঠানো

৩. এমপি-মন্ত্রীদের স্বজন, হাইব্রিড নেতা ও যুদ্ধাপরাধীর সন্তানদের নাম পাঠানো

৪. কোন্দলের কারণে কোন কোন জেলা থেকে নামের আলাদা আলাদা তালিকা প্রেরণ

প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনের প্রার্থীদের নাম ঘোষণার পরও অভিযোগ আসা অব্যাহত আছে। উপজেলা নির্বাচনে মনোনয়নকে ঘিরে এসব অনিয়ম অভিযোগের কথা স্বীকার করেন দলটির নেতারাও।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, 'এটি অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই যে, তৃনমূল পর্যায়ে কোনো আনিয়ম হয়নি। আনেক অভিযোগ আসার পর, সকলে সরাসরি আবেদন করতে পারবে বলে আমরা উন্মুক্ত করে দিয়েছি।'

তবে স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের সভায় বিষয়গুলো খতিয়ে দেখেই মনোনয়ন দেয়া হয়েছে বলে আশ্বস্ত করেন এ বোর্ডের একজন সদস্য।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব:) ফারুক খান বলেন, 'কোন কোন উপজেলাতে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক আলাদা দুটি লিষ্ট পাঠিয়েছে। আমরা দুটি লিষ্টই বিবেচন করেছি এবং এই লিষ্ট বিবেচনা করেই সবথেকে বেশি যোগ্য ব্যক্তিকেই মনোনয়ন দিয়েছি। এছাড়া আমাদের কাছে জরীপ রিপোর্টও আছে। আমরা সবচেয়ে আগে রেজুলেশ দেখেছি এবং কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ থাকলে সেটাও খতিয়ে দেখেছি।'

ফারুক খান তৃনমূল থেকে আসা এ সকল অভিযোগ প্রসঙ্গে আরও বলেন, 'যে মনোনয়ন পায়নি সে কারো না কারো উপর দোষ চাপাচ্ছে।'

তৃণমুলের এসব বিশৃঙ্খলা রোধে ভবিষৎতে আরো কঠোর হবে দল এমনটাই জানান আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

আরও পড়ুন

শেখ হাসিনার ট্রেনে হামলা মামলায়: সাজাপ্রাপ্ত আসামি টেনুর মৃত্যু

১৯৯৪ সালে পাবনার ঈশ্বরদীতে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে গুলি ও বোমা হামলা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হাকি...

'বিএনপি-জামায়াতের মদদেই গ্রেনেড হামলা'

বিএনপি-জামায়াতের মদদেই ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা হয়েছিল বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, রাজনৈতিক সভায় যুদ্ধের অস্ত্র গ্রেনেড হামলা নজিরবিহীন।&n...

রেখাচিত্রে সারাদেশে ডেঙ্গুর বিস্তার-৩

ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালগুলোতে আগের থেকে রোগীর চাপ কমছে।  দুই দশক আগে বাংলাদেশে ডেঙ্গু জ্বর প্রথম দেখা দিলেও এ বছর আক্রান্তের সংখ্যা সব রেকর্ড ছাড়িয়েছে...

শেখ হাসিনার ট্রেনে হামলা মামলায়: সাজাপ্রাপ্ত আসামি টেনুর মৃত্যু

১৯৯৪ সালে পাবনার ঈশ্বরদীতে তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে গুলি ও বোমা হামলা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হাকি...