DBC News
'সব চেয়ে বেশি কলড্রপ গ্রামীণফোনে'

'সব চেয়ে বেশি কলড্রপ গ্রামীণফোনে'

মোবাইল অপারেটরগুলোর মধ্যে এখন সবচেয়ে বেশি কলড্রপ হচ্ছে গ্রামীণফোনে। যা বিটিআরসি'র নির্ধারিত সীমা ও অন্যান্য অপাটেরগুলোর কলড্রপের তুলনায় অনেক বেশি। খরচ বেশির অজুহাতে যন্ত্র ও তরঙ্গে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে না গ্রামীণফোনসহ অন্য অপারেটরগুলো। নতুন বিনিয়োগ ছাড়া টেলিকমে গ্রাহক সেবার মান রক্ষা করা সম্ভব নয়- বলছেন টেলিকম-খাত বিশেষজ্ঞরা।

মোবাইলে কথা বলার সময় হঠাৎ করে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়াকেই বলে কলড্রপ। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির তথ্য অনুযায়ী, এখন সবচেয়ে বেশি কলড্রপ হচ্ছে গ্রামীণফোনে। টেলিকম কমপ্লায়েন্স অনুযায়ী, মাসে কলড্রপ ২ শতাংশের মধ্যে রাখার নির্দেশনা রয়েছে। অথচ গ্রামীণফোন কলড্রপ এখন ৩.৩৮ শতাংশ। তবে, প্রতিটি কলড্রপ নয়। তিনটি কলড্রপ হলে গ্রাহককে ক্ষতিপূরণ দেয় গ্রামীণফোন।

গ্রামীণফোন হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স হোসেন সাদাত জানান, ‘জানুয়ারিতে আমরা ক্ষতিপূরণ হিসেবে গ্রাহকদের প্রায় ৪.৫ মিলিয়ন মিনিটস দিয়েছি। একইভাবে গ্রাহকদের ফেব্রুয়ারি মাসে আমরা ৪ মিলিয়ন মিনিটস দিয়েছি, যারা এই ক্ষতিপূরণের প্রাপ্য ছিলেন।’

কিন্তু এমন নিয়মে গ্রাহক প্রকৃত ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে না বলে জানান টেলিকম-খাত বিশেষজ্ঞরা।

এই খাতের বিশেষজ্ঞ রোকন-উজ-জামান জানান, ‘ধরা যাক, একজন ডাক্তার তাঁর রোগীর সঙ্গে কথা বলছেন। সে হয়তো দশ মিনিট কথা বলবেন, কিন্তু এই দশ মিনিটের সেশনে বাজার মূল্য দাঁড়াবে এক হাজার টাকা। মাঝপথে কলটা কেটে গেল, সেক্ষেত্রে আবার তাঁকে এই সেশনটা শুরু করতে হবে। তাহলে এই বিবেচনায় গ্রাহক শুধু টকটাইমের টাকার ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে না, তাঁর প্রোডাক্টিভ বাজার মূল্যও সে হারাচ্ছে। সুতরাং কোম্পানিগুলোকে এর ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।’

কলড্রপ কমাতে হলে, যন্ত্র ও তরঙ্গে নতুন বিনিয়োগ প্রয়োজন। কিন্তু খরচ বেশির অজুহাতে তা করছে না অপারেটরগুলো।

রবি হেড অব রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স শাহেদ আলম জানান, ‘গড়ে যদি আমাকে একটা কল ড্রপ কমাতে হয়, সেখানে কিন্তু আমাদের একটা উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগের প্রয়োজন আছে। এই বিনিয়োগ আমরা তখনই করবো যখন দেখা যাবে সেখানে আমাদের একটা মুনাফার সুযোগ রয়েছে। না হলে এই বিনিয়োগের কোনও অর্থ থাকবে না।’

সেই সঙ্গে, গ্রাহক সেবার মান রক্ষা করতে হলে, নতুনভাবে বিনিয়োগ করা ছাড়া উপায় নেই বলেও জানান টেলিকম খাত বিশেষজ্ঞরা। রোকন-উজ-জামান জানান, ‘যদি গ্রামীণফোনের মুনাফার দিকে তাকানো যায়, তাহলে দেখা যাবে এটা উল্লেখযোগ্য মাত্রার মুনাফা। গ্রামীণফোন মাত্র ২০০ মিনিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে। অথচ গত বছরেই শুধু তারা ৪০০ থেকে ৫০০ মিলিয়ন ডলারের মুনাফা অর্জন করেছে। সুতরাং এই মুনাফার সাপেক্ষে স্পেকট্রামের দাম খুবই নগণ্য।’

তবে, নতুন তরঙ্গ কেনার সুফল পাচ্ছে বাংলালিংক। বর্তমানে সবচেয়ে কম কলড্রপ এই অপারেটরটির।

বাংলালিংক চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স তাইমুর রহমান জানান, ‘গত বছর অনেক স্পেকট্রাম কেনা হয়েছে। ১০.৬ মেগা হার্টজ স্পেকট্রাম কিনতে খরচ হয় প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা। এর ফলে, আমরা এখন ফল পাচ্ছি। যদি বিশ্লেষণ করা যায়, দেখা যাবে, আমাদের কল ড্রপের মাত্রা কিন্তু অন্যান্য অপারেটরের তুলনায় কম।’

অন্যদিকে ‘মোবাইল কল সংযোগ স্থাপনের সফলতার হারেও অপারেটরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে এগিয়ে আছে বাংলালিংক।

আরও পড়ুন

প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির সমীকরণে বাংলাদেশ

মহান স্বাধীনতা অর্জনের আটচল্লিশ বছরে বাংলাদেশ। একাত্তরের এই দিনে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে দীর্ঘ ৯ মাসের সংগ্রাম শেষে অর্জিত হয়েছিল এদেশের স্বাধীনতা। হাজারও সমস্...

স্বাধীন দেশ নিয়ে কণ্ঠযোদ্ধাদের ভাবনা

মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীনতার ৪৮ বছরে এসে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পীরা কী ভাবছেন দেশ নিয়ে? বুক ভরা আশা আর সাহস নিয়ে যারা ঝাঁপিয়ে পড়েছিল...

গাইবান্ধার ৯ রাজাকারের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ

মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে গাইবান্ধার ৯ রাজাকারের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।  রাজধানীর...

ফুটপাতে দোকান আর ডাস্টবিন, রাস্তায় নিরুপায় পথচারী

উচ্চ আদালতের আদেশের পরও দখলমুক্ত হচ্ছে না রাজধানীর ফুটপাত। প্রায় পুরো ফুটপাত জুড়েই গিজগিজ করছে দোকান আর ময়লার ডাস্টবিন। বাধ্য হয়েই রাস্তায় নামতে হচ্ছে পথচারীদের...