DBC News
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ: কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা, লিভারপুল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ: কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা, লিভারপুল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে বার্সেলোনা, লিভারপুল। রাউন্ড অব সিক্সটিনের সেকেন্ড লেগে অলিম্পিক লিওকে ৫-১ গোলে উড়িয়েছে বার্সা। আর বায়ার্ন মিউনিখের মাঠে ওদের ৩-১ গোলে হারিয়ে শেষ আটের টিকিট কেটেছে লিভারপুল।

গেল রাতে রোনালদোর হ্যাটট্রিকের পর মেসির হেটাররা অনেকেই বলেছেন ঈশ্বর থাকেন ইতালিতে; স্পেন তাকে খুজে পাওয়া যাবে না। একদিনও লাগেনি নিন্দুকদের জবাবটা পেতে। তিন গোল না করলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে নাম লেখাতে অলিম্পিক লিওর জালে জোড়া দিয়েছেন মেসি আর দুই সতীর্থকে বানিয়ে দিয়েছেন দুটো গোল।

প্রথম লেগে নিজেদের মাঠে বার্সাকে রুখে দেয়া লিও ক্যাম্প ন্যূতে এসে শুরু থেকেই খেইহারা। চার মিনিটেই যেখানে বার্সা এগিয়ে যেতে পারতো সেখানে প্রথম গোলটা এলো ১৭ মিনিটে। পেনাল্টি থেকে গোল করে স্কোরশিটে মেসি। আধ ঘন্টা পেরুতেই সেকেন্ড গোল হোস্টদের। সুয়ারেজের অ্যাস্টিস্ট থেকে অনায়াসে লিওর জালে বল পাঠান ব্রজিলিয়ান মিডফিল্ডার কৌতিনহো।

বিরতীর পরপরই লিডটা আরো বাড়িয়ে নিতে পারতো কাতালানরা। উল্টো ৫৮ মিনিটে ডিফেন্ডাররা বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে  লিওর হয়ে ব্যবধান কমান লুকাস তৌসার্ট।

৭৮ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলটা করেন মেসি। সার্জিও বুসকেতসের পাস থেকে বল নিয়ে একাই ভাঙ্গলেন লিওর ডিফেন্স। ৮১ মিনিটে পিকের আর ৮৬ মিনিটে ডেম্বেলের গোল। কিন্তু দুটো গোলেই মেসির দারুন ভুমিকা। দুযো গোলের বলের যোগান দাতাই আর্জেন্টাই ম্যাজিসিয়ান। এই জয়ে রেকর্ড টানা ১২বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সা।

আরেক ম্যাচে বায়ার্নের মাঠে সাদিও মানের গোলে ২৬ মিনিটেই এগিয়ে যায় লিভারপুল। ৩৯ মিনিটে মাতিপের আত্মঘাতি গোলের সুবাদে সমতায় ফেরে বায়ার্ন।  কিন্তু ম্যাচে আর ফিরতে পারেনি হোস্টরা।

বিরতীর পর ৬৯ মিনিটে ফন ডাইক বায়ার্নকে এগিয়ে দেন ২-১ গোলে। এরপর ৮৪ মিনিটে মানের দ্বিতীয় গোলে জয়ের সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ আটে পৌঁছে যায় লিভারপুল।