DBC News
নুসরাত হত্যা: ফেনীর এসপি জাহাঙ্গীর আলম প্রত্যাহার

নুসরাত হত্যা: ফেনীর এসপি জাহাঙ্গীর আলম প্রত্যাহার

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় গাফিলতির প্রমাণ পাওয়ার পর ফেনীর এসপি জাহাঙ্গীর আলম সরকারকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। শাস্তিমূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে তাকে সদরদপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছে। পুলিশ সদর দপ্তরের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে রবিবার এ ব্যবস্থা নিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এর আগে, ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করে রংপুর রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়। আর তাতে ফুঁসে ওঠে জেলার শিক্ষার্থীরা। শুরু হয়ে যায় প্রতিবাদ বিক্ষোভ, সেই সাথে মোয়াজ্জেমকে দ্রুত প্রত্যাহার না করা হলে কঠোর আন্দোলনের হুমকিও দেয়া হয়।

গেল ১০ই মে রংপুর ডিআইজি অফিসে ওসি মোয়াজ্জেমকে সংযুক্তির খবর গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ নানা ভাবে প্রতিবাদের ঝড় উঠে রংপুরে। শনিবার দুপুরে মোয়াজ্জেমকে প্রত্যাহারের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষন পরিষদ। তাকে প্রত্যাহার না করা হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেয় শিক্ষার্থীরা।

পাশাপাশি নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় দায়িত্ব পালনে গাফিলতির প্রমাণ পাওয়ার পর সোনাগাজী মডেল থানার এসআই মো. ইউসুফকে খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি কার্যালয় ও এসআই মো. ইকবাল আহাম্মদকে খাগড়াছড়িতে সংযুক্ত করা হয়। পুলিশ সদর দপ্তরের গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতেই এই ব্যবস্থা।

মাদ্রাসা অধ্যক্ষ সিরাজ উদদৌলার বিরুদ্ধ শ্লীলতাহানির অভিযোগ তুলে নিতে রাজি না হওয়ায় গত ৬ই এপ্রিল নুসরাতকে পুড়িয়ে দেয় অধ্যক্ষের অনুসারী একদল ছাত্র-ছাত্রী।

পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার খবর পেয়েও ঘটনাস্থলে যাননি এসপি জাহঙ্গীর। এমনকি মাদ্রাসাছাত্রী হত্যার ঘটনাকে আত্মহত্যা বলে প্রচার করা ওসিকে রক্ষা করতে পুলিশ সদরদপ্তরে ভুল তথ্য পাঠান তিনি।

প্রসঙ্গত, সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ এসএম সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে ‘শ্লীলতাহানির’ অভিযোগ এনে চলতি বছরের মার্চে সোনাগাজী থানায় একটি মামলা করে নুসরাতের পরিবার। মামলা তুলে না নেওয়ায় অধ্যক্ষের অনুসারীরা গত ৬ই এপ্রিল সকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে নুসরাত জাহান রাফির গায়ে পরিকল্পিত ভাবে আগুন লাগিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায় । তারা নুসরাতকে মিথ্যা বলে পরীক্ষা কেন্দ্রের ছাদে নিয়ে যায় এবং তার শরীরে আগুন লাগিয়ে পালিয়ে যায়।

অগ্নিদগ্ধ নুসরাতকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। তার শরীরের ৮০ শতাংশ পুড়ে যাওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে সেদিনই তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এরপর প্রধানমন্ত্রী উন্নত চিকিৎসার জন্য নুসরাতকে সিঙ্গাপুরে নেয়ার নির্দেশ দিলেও তার অবস্থা শংঙ্কটাপন্ন হওয়ায় তাকে সিঙ্গাপুর নেয়া সম্ভব হয়নি। ঢাকা মেডিক্যালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ই এপ্রিল মারা যান নুসরাত।

আরও পড়ুন

শিশু ওয়ার্ডে ধারণক্ষমতার কয়েক গুণ বেশি রোগী

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে ধারণ ক্ষমতার কয়েক গুণ রোগী ভর্তি রয়েছে। ফলে ওয়ার্ডে বেড না পেয়ে, হাসপাতালের করিডোরে শিশুদের নিয়ে অবস্...

সাতক্ষীরার ডেঙ্গু আক্রান্ত ছাত্রের খুলনায় মৃত্যু

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জের ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আলমগীর গাজী (১৪) নামের এক মাদ্রাসা ছাত্র খুলনায় মারা গেছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে সে মারা যায়। এই প্রথম সাতক্ষীরা...

বিয়ের গেট ধরাকে কেন্দ্র করে বর-কনে পক্ষের সংঘর্ষ

কনের বিদায় অনুষ্ঠান, বরপক্ষ কনে আনতে হাজিরও হয়েছেন যথা সময়ে। সাথে এসেছে বরের বন্ধু-বান্ধব আর আত্নীয়-স্বজন। তবে বিয়ে বাড়িতে ঢোকার আগেই ঘটে বিপত্তি। বিয়ে বাড়ি...

ভোলায় ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ভোলায় মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযানে ২০ পিস ইয়াবাসহ মো: সোহাগ (৩৮) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলার আলীনগর এলাকা থেকে তাক...