DBC News
বাজেটে সংস্কৃতিকে অবহেলার অভিযোগ

বাজেটে সংস্কৃতিকে অবহেলার অভিযোগ

বড় আকারের প্রস্তাবিত বাজেটে কমেছে সংস্কৃতি খাতের বরাদ্দ। অবহেলা করা হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ এই খাতকে। নতুন অর্থ বছরের বাজেট নিয়ে এমনটাই জানালেন সংস্কৃতি অঙ্গনের বিশিষ্টজনেরা। তবে বাজেট নিয়ে সন্তুষ্টির কথা জানিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে, বাজেট কম হলেও উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর অনুমোদন হলে বরাদ্দ বাড়বে, বলছে শিল্পকলা একাডেমি।

এবারের বাজেটে সংস্কৃতি খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৫৭৫ কোটি টাকা; যা গত বছরের সংশোধিত বাজেটের থেকে ৫০ কোটি টাকা কম। একে হতাশাজনক বলে মন্তব্য করেছেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, এটা আমাদের কাছে খুবই হতাশাব্যঞ্জক লেগেছে। আমরা যদি দীর্ঘমেয়াদী বাংলাদেশের উন্নয়নের কথা চিন্তা করি। তাহলে অবশ্যই সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে উন্নয়ন বাড়াতে হবে।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ বলেন, বাজেটে সাংস্কৃতিকে ভীষনভাবে অবহেলা করা হয়েছে। যেখানে জাতীয় বাজেটের আকার অনেক বেড়েছে সেখানে সংস্কৃতির বাজেট এমনিতেই কম, তারমধ্যে এবার তার পরিমান আরও কমিয়েছে, যা হতাশাজনক।

গত অর্থবছরে এ খাতে বাজেট ধরা হয় ৬২৫ কোটি টাকা। অন্যান্য অনেক খাতের চেয়ে এর পরিমাণ কম হলেও এবার তা আরো কম হওয়ায় অসন্তুষ্ট তারা।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ বলেন, আমাদের প্রত্নতাত্ত্বিক ইতিহাসই হচ্ছে আমাদের আত্নপরিচয়ের মূল জায়গা। তার উপর নির্ভর করেই আগামী দিনের একজন তরুণ শিল্পী বেড়ে উঠবে। কিন্তু সেই সুযোগটা তো আমরা রাখছি না। আমার মনে হচ্ছে সরকারকে এটা বিবেচনা করা দরকার।

যাত্রাপালা, সার্কাসের মতো প্রায়বিলুপ্ত সংস্কৃতির পৃষ্টপোষকতায় তেমন উদ্যোগ না থাকারও সমালোচনা করেন তারা। তবে প্রস্তাবিত বাজেটে সন্তুষ্টি জানিয়েছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, এটি অবহেলিত না, যেই বাজেট দেয়া হয়েছে সেটিই আমাদের খরচ করতে হবে। এছাড়া এর বাইরেও আমাদের জন্য কিছু বরাদ্দ থাকে যেটির মাধ্যমে আমরা তৃণমূলে আমাদের সংস্কৃতিকে ছড়িয়ে দিতে পারবো।

এদিকে সংস্কৃতি মন্ত্রণালযের অধীনে প্রস্তাবিত উন্নয়ন প্রকল্পগুলো অনুমোদন হলে এ খাতে বরাদ্দ বাড়বে বলে মনে করে শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

তিনি বলেন, অর্থের সংস্থান নিয়ে আমাদের সময় ব্যয় না করে প্রকল্পের মাধ্যমে যদি আমরা অর্থের বরাদ্দ পাই সেটি কিন্তু আমাদের পরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত। এসব প্রকল্প যখন অনুমোদিত হবে, তখন কিন্তু আমাদের বাজেটের আকার বেড়ে যাবে।
 
সেক্ষেত্রে উন্নয়ন খাতে আলাদা বরাদ্দ দেয়ারও দাবি জানিয়েছেন তারা। 

আরও পড়ুন

'বাজারে লবণের নামে সোডিয়াম সালফেট'

খাবার লবণের নামে একটি সিন্ডিকেট 'বিষাক্ত সোডিয়াম সালফেট' বাজারে ছাড়ছে। এমন অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ লবণ মিল মালিক সমিতি। সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে স...

শীর্ষ ব্যবসায়ী নূর আলীকে দুদকে তলব

সিটি করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তি ভঙ্গ করে ১৪ তলার বদলে বনানী ডিসিসি ইউনিক কমপ্লেক্স নামে ২৮ তলা ভবন নির্মাণ করার অভিযোগে শীর্ষ ব্যবসায়ী নূর আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্...

কর ও শুল্ক আরোপের প্রভাব নির্মাণ খাতে

বাজেটে কর ও শুল্ক আরোপের কারণে, বেড়ে গেছে রড ও সিমেন্টের উৎপাদন খরচ। বেড়ে গেছে দামও। আর তার প্রভাব পড়েছে নির্মাণ খাতে। ফলে ফ্ল্যাটের দাম মধ্যবিত্তের নাগালের বাই...

আইপিওতে কোটা বদল, সুবিধা পাবে না বাজার

আইপিওতে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কোটা সুবিধা বাড়ানোতে পুঁজিবাজারের বর্তমান পরিস্থিতি মোটেও বদলাবে না। বরং বিশ্লেষকদের আশঙ্কা- এতে সেকেন্ডারি মার্কেট থেকে বিনিয়োগ ত...