DBC News
সমকামিতায় বাধ্য করার ক্ষোভ থেকেই খুন হন শ্রমিক নেতা

সমকামিতায় বাধ্য করার ক্ষোভ থেকেই খুন হন শ্রমিক নেতা

পুঠিয়ার চাঞ্চল্যকর শ্রমিক ও বিএনপি নেতা নুরুল ইসলাম হত্যাকাণ্ড পর নানা রকম জটিল রাজনৈতিক হিসেব-নিকেশ ছিল তদন্ত কর্মকর্তা ও জনমনে। তবে,  শেষ পর্যন্ত বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর এই হত্যাকাণ্ডের আসল রহস্য।

পুলিশ বলছে, অন্য কোনো বিরোধ নয়। শুধুমাত্র সমকামিতায় জীবন নামের এক কিশোরকে বাধ্য করার ঘটনা থেকেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আর এই হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয় সমকামিতার শিকার হওয়া কিশোর জীবন (১৬) একাই। গোয়েন্দা পুলিশের তদন্তে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর এসব রহস্য।

সোমবার বিকেলে, কিশোর জীবনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। পরে, আদালত তা গ্রহণ করে তাকে কারাগারে পাঠান। মঙ্গলবার দুপুরে, রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতে খায়ের আলম এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

এদিকে, এ ঘটনার সাক্ষী হিসেবে শ্রমিক নেতা নুরুল ইসলামের সমকামিতার কথা স্বীকার করে আরও তিনজন আদালতে জবানবন্দী দেন বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান ইফতে খায়ের আলম।

তিনি জানান, ‘নুরুল ইসলাম বিএনপি নেতা এবং পরিবহণ শ্রমিক নেতা ছিলেন। সে বিভিন্ন জনের সঙ্গেই সমকামিতায় লিপ্ত হত।

গ্রেপ্তারকৃত জীবন পুঠিয়ার রামজীবনপুর এলাকার জিয়ারুল হকের পুত্র। জীবনের প্রতিবেশী নানা ছিলেন নুরুল ইসলাম। সেই সূত্রে জীবন নুরুল ইসলামের মাছের আড়তে সাত আট বছর বয়স থেকেই কাজ করতেন। নুরুল ইসলামের আশ্রয়েই বড় হয়েছে জীবন। আর এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে সাত-আট বছর আগে থেকেই শিশু জীবনকে সমকামিতায় বাধ্য করে নুরুল ইসলাম। টাকা-পয়সার প্রলোভন দিয়ে সমকামিতায় নিয়ে এলেও জীবন তা পছন্দ করত না। তার কথায় সমকামিতায় রাজী না হলে প্রায়ই মারপিট করে জীবনকে নির্যাতন চালাতেন নুরুল।

গেল ১০ই জুন রাতেও নুরুল ইসলাম কিশোর জীবনকে সমকামিতার জন্য কাঁঠালবাড়ীয়া এলাকার আশরাফের ইটভাটায় নিয়ে যান। সেখানে সমকামিতার এক পর্যায়ে নুরুল ইসলাম শরীরের নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পেরে মাটিতে পড়ে যান। তখনই সে নুরুল ইসলামের গলা টিপে ধরে। এরপর হাতের কাছে থাকা ইট দিয়ে নুরুলের মাথায় আঘাত করতে থাকে। এরপর, রক্তাক্ত নুরুল ইসলামকে ঘটনাস্থলে ফেলে রেখেই জীবন বাড়ীতে চলে যায়।‘

পরদিন মরদেহ উদ্ধার হলে অন্য সবার মতো সেও জানতে পারে নুরুল ইসলাম মারা গেছেন।

পুলিশ কর্মকর্তা ইফতে খায়ের আলম আরো জানান, বাড়ীতে গিয়ে জীবন খুবই স্বাভাবিকভাবেই চলাফেরা করেছে। পরদিন নিহত নুরুলের পরিবারের পক্ষ থেকে শ্রমিক নেতা আব্দুর রহমান পটলসহ নুরুলের প্রতিপক্ষদের নামে হত্যা মামলা করলে সে আরো নিশ্চিন্তমনে চলাফেরা শুরু করে। সে ভাবতেও পারেনি পুলিশ তাকে আটক করতে পারবে।

পরে, গোয়েন্দা পুলিশ তদন্তে নেমে নুরুল ইসলামের ফোন কল ঘেটে দেখতে পায় ওই দিন দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত একাধিকবার জীবনের সঙ্গে নুরুল ইসলাম কথা বলেছে। সন্দেহজনকভাবেই পুলিশ জীবনকে গত ১৬ জুন তার বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে। এরপর সে পুলিশের কাছে বিস্তারিত প্রকাশ করে। এরপর ১৭ জুন সে আদালতে জবানবন্দি দেয়। আদালত তার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, এই হত্যাকান্ডে জীবন ছাড়া আর কেউ জড়িত নেই। একথা সে আদালতে স্বীকার করেছে। মামলার তদন্ত শেষ। তাই দ্রুতই আদালতে এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে। তিনি আরো জানান, জীবন যেহেতু কিশোর, তাই মামলাটি আইন অনুযায়ী কিশোর আদালতে বিচার কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত ১১ই জুন সকালে রাজশাহীর পুঠিয়ার কাঠালবাড়িয়া গ্রামের একটি ইটভাটা থেকে নুরুল ইসলামের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নুরুল ইসলাম উপজেলার জিউপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা ছিলেন। তিনি পুঠিয়ার জিউপাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি ছিলেন। এছাড়া, বিএনপির প্যানেলে রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের পুঠিয়া শাখার নির্বাচনে অংশ নিয়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন। গত ২৪শে এপ্রিল সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচনে আবারো অংশ নিয়ে তিনি আব্দুর রহমান পটলের কাছে পরাজিত হন।

নুরুল ইসলামের মৃত্যুর পর তার কন্যা বাদী হয়ে জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন পুঠিয়ার নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান পটলসহ প্রতিপক্ষের ছয়জন শ্রমিক নেতার নামে হত্যা মামলা দায়ের করেছিলেন।

আরও পড়ুন

বগুড়ায় ছেলে ধরা সন্দেহে চার যুবককে গণপিটুনি

বগুড়ায় ছেলে ধরা সন্দেহে চার যুবককে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। পুলিশের হস্তক্ষেপে তাদের উদ্ধারের পর আনা হয় থানায়। এঘটনায় পুলিশের সাথে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর সংঘর্ষ...

সাগরে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা শেষ

সাগরে মাছ ধরার ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে মঙ্গলবার, বুধবার থেকেই কর্মব্যস্ততা শুরু হবে জেলেদের। গত ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সাগরের অর্থনৈতিক অঞ্চলে...

শীর্ষ ব্যবসায়ী নূর আলীকে দুদকে তলব

সিটি করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তি ভঙ্গ করে ১৪ তলার বদলে বনানী ডিসিসি ইউনিক কমপ্লেক্স নামে ২৮ তলা ভবন নির্মাণ করার অভিযোগে শীর্ষ ব্যবসায়ী নূর আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্...

দুদকের বরখাস্ত পরিচালক বাছির গ্রেপ্তার

ঘুষ কেলেঙ্কারি মামলার আসামি দুর্নীতি দমন কমিশনের বরখাস্ত পরিচালক খন্দকার এনামুল বাছিরকে গ্রেপ্তার করেছে দুদক।সোমবার রাতে দারুস সালামের একটি বাসা থেকে তাকে গ্রেপ...

রিফাত হত্যায় রিশানের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

বরগুনায় নৃশংসভাবে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার অন্যতম আসামি রিশান ফরাজী। সোমবার, বরগুনা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট...

জ্বীনের ভয় দেখিয়ে ১৮ বছর ধরে ধর্ষণ করছেন মসজিদের ইমাম

জ্বীনের ভয় দেখিয়ে টানা ১৮ বছর ধরে একের পর এক নারী ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে মসজিদের এক ইমামের বিরুদ্ধে। রাজধানীর উত্তরার দক্ষিণখানের সৈয়দ নগর এলাকার মসজিদের ইমাম...