DBC News
চতুর্থ দিনের মতো সারা দেশের সাথে বান্দরবানের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

চতুর্থ দিনের মতো সারা দেশের সাথে বান্দরবানের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

ভারী বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে প্রধান সড়ক প্লাবিত হওয়ায় বান্দরবানের সঙ্গে সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ টানা চতুর্থ দিনের মতো বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

চারদিন ধরে যোগাযোগ বন্ধ থাকায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং ঢাকাগামী কোনো যাত্রীবাহী বাস বান্দরবান শহর ছেড়ে যায়নি। এমনকি, নৌকা এবং রিকশা-ভ্যানে করে ভেঙে ভেঙে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছে যাত্রীরা।

এছাড়া জেলার সাত উপজেলায় ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকার কারণে বাড়ছে পাহাড় ধসের শঙ্কা। পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাসকারীদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত মাইকিং করা হচ্ছে।

তবে, বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কিছুটা কমে যাওয়ায় সাঙ্গু নদীর পানি কিছুটা কমেছে। 

এদিকে, অতিবৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে রাঙামাটি, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রামসহ কয়েকটি জেলায় দেখা দিয়েছে বন্যা।

রাঙামাটিতে পাহাড়ি ঢলে কাচালং নদীর পানি বেড়ে বাঘাইছড়ির অন্তত ১৫টি গ্রাম প্লাবিত হলেও, নতুন করে বৃষ্টি না হওয়ায় পানি নামতে শুরু করেছে।

এছাড়া কুড়িগ্রামে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তিস্তাসহ নদ-নদীর পানি বেড়ে দেখা দিয়েছে বন্যা। প্লাবিত হয়েছে নিম্নাঞ্চল। পানিবন্দি কয়েক হাজার মানুষ। 

লালমনিরহাটে তিস্তা ও ধরলার পানি বেড়ে পাঁচ উপজেলার অন্তত ৩০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দি রয়েছে অন্তত ২৫ হাজার মানুষ। গাইবান্ধায় ভারী বর্ষণ এবং ঢলে নদ-নদীর পানি বেড়েই চলছে। চার উপজেলার তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদী তীরবর্তী চর এলাকায় পানি ঢুকে পড়েছে। এতে ফসলী জমি ও রাস্তাঘাট তলিয়ে গেছে।