DBC News
নায়ক সালমান শাহ’র ২৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নায়ক সালমান শাহ’র ২৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নায়ক সালমান শাহ’র ২৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। দীর্ঘ ২৩ বছর পার হলেও বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় এ নায়ক সামলান শাহের মৃত্যুর রহস্য আজও উদ্ঘাটন হয়নি। ১৯৯৬ সালের ৬ই সেপ্টেম্বর রাজধানীর ইস্কাটন রোডে নিজের বাসা থেকে সালমান শাহর লাশ উদ্ধার করা হয়।

কয়েক দফা তদন্তে সালমানের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হলেও সেটা মেনে নিতে পারেনি তার পরিবার ও অগুনতি ভক্ত। ২০১৬ সালের শেষের দিকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে-পিবিআই নতুন করে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়।

সর্বশেষ গত ১লা সেপ্টেম্বর পিবিআই আদালতে মামলার 'তদন্ত অগ্রগতি' প্রতিবেদন দাখিল করে। তবে সেই প্রতিবেদনে উল্লেখযোগ্য কোনো অগ্রগতির তথ্য দেয়া হয়নি। দীর্ঘদিন তদন্তাধীন এ মামলার অনেক সাক্ষী ও আলামত নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে মৃত্যুরহস্য উদ্ঘাটনে খোদ তদন্ত সংস্থাই হিমশিম খাচ্ছে।

তদন্ত শেষে কবে নাগাদ প্রতিবেদন দেয়া হবে- এ বিষয়ে স্পষ্ট করে বলতে পারছেন না কেউ। আগামী ১লা অক্টোবর এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য রয়েছে।

সালমান শাহ ১৯৭১ সালে ১৯শে সেপ্টেম্বর সিলেট জেলায় অবস্থিত জকিগঞ্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তার আসল নাম নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। চলচ্চিত্রে এসে নাম নেন ‘সালমান শাহ’। তার বাবা কমর উদ্দিন চৌধুরী ও মা নীলা চৌধুরী।

টেলিভিশন নাটক দিয়ে তার অভিনয় জীবন শুরু হলেও ১৯৯০-এর দশকে তিনি চলচ্চিত্রে অন্যতম জননন্দিত শিল্পী হয়ে উঠেন। ১৯৯৩ সালে তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত কেয়ামত থেকে কেয়ামত মুক্তি পায়। আর এ ছবির মধ্যদিয়েই জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছে যান তিনি।

১৯৮৫ সালে বিটিভির আকাশ ছোঁয়া নাটক দিয়ে অভিনয়ের যাত্রা শুরু করেন। পরে দেয়াল, সব পাখি ঘরে ফিরে, সৈকতে সারস, নয়ন, স্বপ্নের পৃথিবী নাটকে অভিনয় করেন। নয়ন নাটকটি সে বছর শ্রেষ্ঠ একক নাটক হিসেবে বাচসাস পুরস্কার লাভ করে।এছাড়া তিনি ১৯৯০ সালে মঈনুল আহসান সাবের রচিত উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত পাথর সময় ও ১৯৯৪ সালে ইতিকথা ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন।

কেয়ামত থেকে কেয়ামত ছবির মধ্য দিয়ে সিনেমা জগতে পা রাখা সালমান শাহ বাংলা চলচ্চিত্র কে করে গেছেন সমৃদ্ধ। তার অভিনীত ছবির মধ্যে রয়েছে, অন্তরে অন্তরে, সুজন-সখী, বিক্ষোভ, দেনমোহর, স্বপ্নের ঠিকানা ইত্যাদি। চার বছরের ক্যারিয়ারে সর্বমোট ২৭টি ছবিতে অভিনয় করেন তিনি।