DBC News
দল কবে শিখবে জানা নেই সাকিবেরও

দল কবে শিখবে জানা নেই সাকিবেরও

টেস্ট ক্রিকেটে ভালো করতে হলে এখন থেকেই ভাবতে হবে নতুন করে। এগোতে বড় পরিকল্পনা নিয়ে। আফগানিস্তানের সঙ্গে হারের পর এমনটাই উপলব্ধি টাইগার ক্যাপ্টেন সাকিব আল হাসানের। জানিয়েছেন, পরিকল্পনা করা প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদে, সাথে দলেও আনতে হবে পরিবর্তন।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসান বলেন, 'এভাবে হারাটা খুবই খারাপ, লজ্জাজনক, হতাশার এর থেকে নিচের কোনো শব্দ থাকলে সেটাও বলতে পারেন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের পার্ফরমেন্স মূল্যায়নে হাসিমুখে সাকিবের কাঁটাছেড়া। দায়টা কি নিজেও এড়াতে পারেন টাইগার ক্যাপ্টেন? শেষ সেশনের প্রথম বলেই এমন আউট হওয়া কি মানায় বিশ্বকাপ মাতিয়ে আসা বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডারের?

সাকিব আল হাসান বলেন, 'বিশ্বকাপে ভালো করার পর আমি আকাশে ছিলাম। আর এই ম্যাচে হারের পর আমি মাটির নিচে চলে গেছি। বিষয়টা এমন না আমি যেখানে ছিলাম সেখানেই আছি। এটা, কে কিভাবে নেবে এটা তাদের ব্যাপার। আমি সবসময় বলেছি আমাদের চেষ্টা থাকে কিভাবে ভালো খেলা যায়। সব সময় দলের জন্য অবদান রাখতে না পারাকেও স্বাভাবিক হিসেবেই দেখছেন। দুই একটা ম্যাচ খারাপ যেতেই পারে। যদি কিছু খেলোয়াড়ের সব সময় ভালো খেলতে হয় তাহলে যারা সব সময় ভালো খেলে ম্যাচ ফি তাদেরই বেশি হওয়ার কথা। কিছু খেলোয়াড় আছে সব সময় এরাই খেলবে তাহলে ম্যাচ ফি এদেরই বেশি হওয়া উচিত।'

এই একটা কথাই ইঙ্গিত দেয়, জুনিয়রদের পার্ফরমেন্সে কতটা বিরক্ত সাকিব। বলছেন, টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে ভাবতে হবে নতুন করে, দীর্ঘমেয়াদে। তিনি আরও বলেন, 'আমাদের বুঝতে হবে কে কোন ফরম্যাটের জন্য বেটার অপশন। বড় পরিকল্পনা করে আমাদের এগোতে হবে। না হলে এরকম রেজাল্ট আমাদের মাঝে মাঝেই আসবে।'

আগের দিন বলেছিলেন কোনো মিরাকল বা বৃষ্টি বাঁচাতে পারে টাইগারদের। সাহায্যের হাতটা বাড়িয়েছিলো প্রকৃতি। তবে, ৪ উইকেট নিয়ে বিশটা ওভারও খেলতে পারেনি বাংলাদেশ। যারপরনাই হতাশ সাকিব বলছেন নেতৃত্ব দিতে না হলেই তাঁর জন্য ভালো। আর দিতে যদি হয়ই, বসবেন ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে।

টেস্ট ক্রিকেটে উনিশ বছর পার করেছে বাংলাদেশ। সাকিবের কথা এখনও শেখার আছে অনেক। তবে, দল কবে শিখবে জানা নাই তাঁরও।