• সোমবার, ১৬ মে ২০২২
  • রাত ৯:৩৬
না.গঞ্জ সিটি নির্বাচন

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমার জয় নিশ্চিত: আইভী

নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমার জয় নিশ্চিত: আইভী
সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে যথাযথ ভূমিকা রাখার আহবান জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তার জয় নিশ্চিত।

রবিবার বাবা আলী আহাম্মদ চুনকার কবর জিয়ারত করে নগরীর শিশুবাগ বিদ্যালয়ে নিজের ভোট দিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের এ কথা বলেন তিনি।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর শিশুবাগ এলাকার আলী আহমদ চুনকা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভোটকেন্দ্রে আসেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। এ সময় বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, নেতাকর্মী ও গণমাধ্যমকর্মী উপস্থিত ছিলেন। পরে সকাল ১০টা ৫০ মিনিটের দিকে ভোট দেন তিনি।

আইভী বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অনেক পরিশ্রম করছেন। আমি চাই আরেকটু পরিশ্রম করে নির্বাচনটা নিরপেক্ষ করা হোক। ইনশাল্লাহ আমি জিতবই, নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আমি জিতবই। ভোটের প্রথম তিনঘণ্টার পরিবেশ নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেন আইভী। তিনি বলেন, ‘ভোটের পরিবেশ এখনও ঠিকাছে। আমি জানি না একটু পরে কী হবে। আমি চাই ভোটার দ্রুত ভোট দিতে পারুক। আইন শৃঙ্খলাবাহিনীকে বলব, আপনারা সহযোগিতা করুন। সহযোগিতা করলে ফল যেটাই হোক মেনে নেব।

ধীর গতি ভোট গ্রহণ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন আইভী। দ্রুত গতিতে ভোট নিতে নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবিও জানান নৌকার প্রার্থী।

তিনি বলেন, ওয়ার্ড নম্বর ৩, ৫, ১৮, ১৭, ২০, এসব জায়গায় খুবই স্লো ভোট কাস্টিং হচ্ছে। দীর্ঘ সময় ধরে মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে আছে। আমি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা চাচ্ছি। যাতে উৎসব মুখর পরিবেশে আমার লোকগুলো ভোট দিতে পারে।

নৌকার নিশ্চিত বিজয়ের আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আইভী ইনশাল্লাহ জিতবেই।কারণ এই শহরের মানুষের সঙ্গে আমার আত্মিক সম্পর্ক। তারা আমাকে ভোট দিতে এসেছেন। আমি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছ অনুরোধ জানাব তারা যেন ভোটদান সহজ করে দেয়। কোনো কেন্দ্র যেন স্লো না থাকে। সবাই যেন দ্রুত ভোট দিতে পারেন।

ভোটগ্রহণ ধীর হবার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইভিএম নতুন, ভোটারদের কাছেও বিষয়টি নতুন। তাদের ট্রেইনআপ করে গতি বাড়াতে হবে। দিন ছোটো শীত কাল। সব কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি আছে।

কয়েকটি কেন্দ্র থেকে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার এজেন্ট বের করে দেয়ার যে অভিযোগ এনেছেন তা অস্বীকার করেন আইভী। তিনি বলেন, ‘আমি যদ্দুর জানি হাতির এজেন্ট সব জায়গায় আছে। কয়েকটি দুয়েকটি কেন্দ্রে আমার এজেন্ট ছিল না। নিজের ভোট দিতে পারার স্বস্তিও ছিল তার কণ্ঠে। তিনি বলেন, আমি আমার ভোটার সুন্দরভাবে দিয়েছি। ইভিএম এ দিয়েছি।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জের মানুষ নির্ধারণ করে ফেলেছেন আমাকেই ভোট দেবে। ইনশাল্লাহ নৌকার জয় হবেই হবে। আইভীর জয় হবেই হবে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয় সকাল ৮টায়। এ ভোট চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে লড়ছেন বিএনপির বিভিন্ন পদ থেকে অব্যাহতি পাওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২৭টি সাধারণ ওয়ার্ডে এবং নয়টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ১৮৭টি ভোটকেন্দ্রে এই ভোট শুরু হয়েছে। ভোটকেন্দ্রে সকাল থেকেই ভোটারদের দীর্ঘ লাইন দেখা গেছে।

ইতোমধ্যে ৩০টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। ভোটাররা যেনো সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে পারে এ জন্য কেন্দ্রে কেন্দ্রে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। প্রথমবারের মতো নাসিকের শতভাগ ভোটকেন্দ্রে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএমে) ভোট নেওয়া হবে।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ১৬ই জানুয়ারী, ২০২২


সর্বশেষ

আরও পড়ুন