• শনিবার, ১৫ মে ২০২১
  • রাত ১১:৫১

এমএসএমই খাতের ৩৭ শতাংশ শ্রমিক স্থায়ী বা অস্থায়ীভাবে কাজ হারিয়েছেন

এমএসএমই খাতের ৩৭ শতাংশ শ্রমিক স্থায়ী বা অস্থায়ীভাবে কাজ হারিয়েছেন
করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রভাবে বাংলাদেশের এমএসএমই খাতের ৩৭ শতাংশ শ্রমিক স্থায়ী বা অস্থায়ীভাবে কাজ হারিয়েছেন।

এ খাতের ৯৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের বিক্রি ব্যাপকভাবে কমেছে। পুরুষের তুলনায় নারীদের প্রতিষ্ঠান বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে। গত জুন ও আগস্ট মাসের মধ্যে বাংলাদেশের অতি ক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প-এমএসএমই খাতের ওপর করোনার প্রভাব শীর্ষক এক জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে। বিশ্বব্যাংক ও এর অঙ্গ সংস্থা আইএফসি এ জরিপে তথ্য প্রকাশ করা হয়।

পাঁচ শতাধিক এমএসএমই প্রতিষ্ঠানের ওপর পরিচালিত জরিপে দেখা গেছে, যারা কাজে আছেন তাদের ৭০ শতাংশই কাজ হারানোর ঝুঁকিতে আছেন। অনেক প্রতিষ্ঠান এখন অস্থায়ীভাবে বন্ধ আছে বা আংশিক খোলা রয়েছে। করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর গড়ে এসব প্রতিষ্ঠানের ১০০ দিন পরিচালনার মতো নগদ অর্থ ছিলো। পরে তাদের নগদ প্রবাহে সমস্যা দেখা দেয়। বাংলাদেশে পুরুষের মালিকানাধীন ২১ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের তুলনায় নারীদের মালিকানাধীন ৩৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠান অস্থায়ীভাবে বন্ধ ছিলো।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ২১শে অক্টোবর, ২০২০


সর্বশেষ

আরও পড়ুন