• সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
  • রাত ২:২৪

করোনার মধ্যেও লালমনিরহাটে জমজমাট ঈদবাজার

করোনার মধ্যেও লালমনিরহাটে জমজমাট ঈদবাজার
করোনাআতঙ্ক ছাপিয়ে লালমনিরহাটে শেষ মূহূর্তে জমজমাট ঈদবাজার। স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে কেনাকাটা করছেন ক্রেতারা। এমন কি মার্কেটগুলোতে নেয়া হচ্ছে শিশুদেরও। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেই প্রশাসনের তদারকি।

তবে করোনার কারণে এবার নতুন পোশাক-আশাকের তেমন সরবরাহ নেই। এ সুযোগে দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। কেনাকাটার এ চিত্র দেখে বোঝার উপায় নেই এখন করোনাকাল! ক্রেতারা বলেন,'বাচ্চারা তো বোঝে না। তাই জামা কিনতে আসছি। গত বছরের চেয়ে দাম বেশি।'

শহরের বিপণিবিতানগুলোতে এমন উপচে পড়া ভিড় চোখে পড়ে সকাল-বিকাল। স্বাস্থ্যবিধি বা সামাজিক দূরত্ব মানছেন না কেউই। নাম মাত্র তৎপরতা রয়েছে প্রশাসনের।

যদিও আতঙ্ক নিয়েই শিশুদের নতুন পোশাক কিনতে ঈদবাজারে আসছেন তাদের অভিভাবকরা। তবে বিভিন্ন জেলায় লকডাউন থাকায় এবার নতুন পোশাকের সরবরাহ কম। তাই বাড়তি দামও গুনতে হচ্ছে ক্রেতাদের।আর স্বাস্থ্যবিধি না মানার বিষয়ে ক্রেতাদেরকে দায়ি করলেন বিক্রেতারা। তারা বলেন,'ক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মানতে চায়না। একজনের সঙ্গে তিনজন আসে।'

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিজেদের তৎপরতার কথা। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদে কেনাকাটায় সতর্কতার বিকল্প নেই বলে মনে করেন তারা।গোসলা রোড, ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি  মোকছেদুর রহমান বলেন, 'প্রতিটি ব্যবসায়ী, প্রতিটি দোকানদারকে আমরা বলছি, অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ব্যবসা বানিজ্য করতে হবে।'

এ প্রসঙ্গে লালমনিরহাট পুলিশ সুপার  আবিদা সুলতানা বলেন, 'ছোট বাচ্চাদেরকে নিয়ে মার্কেটে আসছে। আসলে আমাদের নূন্যতম সচেতনতা বোধটা নেই। বহুসংখ্যক লোকের যখন নিয়ম না মানার প্রবণতা তৈরী হয়, তখন আইন শৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষে কিন্তু তাদেরকে সামাল দেয়াটা মুশকিল।'

স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী, জীবাণুরোধক ব্যবস্থা নেই অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। অথচ এ নিয়ে জেলা প্রশাসনও যথেষ্ট তৎপর নয়।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ২৩শে মে, ২০২০
আপডেটঃ শুক্রবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ০৯:৫৮


সর্বশেষ

আরও পড়ুন