• মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১
  • রাত ১১:২৫

'চলমান বিধিনিষেধের ইতিবাচক প্রভাবে কমছে করোনা রোগী'

'চলমান বিধিনিষেধের ইতিবাচক প্রভাবে কমছে করোনা রোগী'
হাসপাতালে কমছে করোনা রোগী ভর্তির সংখ্যা। সেই সঙ্গে কমছে মৃত্যু এবং শনাক্তের হার। তবে এ নিয়ে আত্মতুষ্টির কোন সুযোগ নেই বলে মনে করেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। এ হার আরও কমাতে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন বিকল্প নেই বলে মনে করেন তারা।

শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইন্সটিটিউট ও হাসপাতালে এপ্রিল মাসজুড়ে প্রায় প্রতিদিন ২০ জনের উপরে রোগী ভর্তি হতেন। কিন্তু তেশরা মে সেখানে ভর্তি হয়েছেন মাত্র ২ জন। কমেছে পরীক্ষা ও শনাক্তের হারও। 

ডিএনসিসি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালের সবধরনের সক্ষমতা বাড়লেও শুরুর তুলনায় রোগী ভর্তির হার বেশ কম এখন।

ডিএনসিসি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন বলেন, গত সপ্তাহের তুলনায় আমরা রোগী কম দেখছি। আগে যেখানে দিনে ৫০ থেকে ৭৫ জনের মত ভর্তি হতো সেখানে এখন ১০ থেকে ১৫ জনের মধ্যে নেমে এসেছে। আগের চেয়ে অনেকটাই কমেছে রোগীর চাপ।

অন্যান্য হাসপাতালেও এখন করোনা রোগী ভর্তির সংখ্যা গেল মাসের তুলনায় কিছুটা কমেছে। চলমান বিধিনিষেধের ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে মনে করেন স্বাস্থ্যবিদরা। 

চিকিৎসাবিজ্ঞানী ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক লিয়াকত আলী বলেন, কোথাও থেকে যেন বার্তা না যায় যে আমরা করোনায় সফল হয়ে গেছি। সফলতার চাইতেও আমাদের জোর দিতে হবে সতর্কতাতে কারণ যেকোন সময়ই আবার করোনা হানা দিতে পারে। আমরা শপিংমল খোলা নিয়ে একটু দুশ্চিন্তায় আছি।

রাজধানীর ১২টি সরকারি হাসপাতালে থাকা ২৬২ টি আইসিইউ শয্যার মধ্যে ৮২টি এখন ফাঁকা রয়েছে।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ৪ঠা মে, ২০২১


সর্বশেষ

ঘটনাপ্রবাহ বিশ্লেষণঃ

আরও পড়ুন