• শনিবার, ১৫ মে ২০২১
  • রাত ১১:৩১

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আইপিআরএস পদ্ধতিতে মাছ চাষ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আইপিআরএস পদ্ধতিতে মাছ চাষ
দেশে শুরু হয়েছে আধুনিক আই-পি-আর-এস এ মাছ চাষ।

পরিবেশ বান্ধব এই পদ্ধতিতে অল্প জায়গায় বেশি মাছ উৎপাদন করা সম্ভব।  চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাছ চাষের আধুনিক এই পদ্ধতি এরইমধ্যে চাষিদের মাঝে সাড়া ফেলেছে।

পুকুরে প্রবহমান পদ্ধতিতে মাছ চাষের টেকসই মডেল ইন পন্ড রেসওয়ে সিস্টেম বা 'আইপিআরএস'। আধুনিক এই পদ্ধতিতে অল্প জায়গায় বেশি ঘনত্বে কয়েকগুণ বেশি মাছ উৎপাদন করা যায়। ২০০৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ শুরু হলেও, বাংলাদেশে হচ্ছে প্রথমবারের মতো।  

বছরের শুরুতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের নয়াগোলা বলুনপুর এলাকায় ৬০ বিঘা জমিতে ১৩টি চ্যানেলে আইপিআরএস পদ্ধতিতে মাছ চাষ শুরু করেন আকবর হোসেন। প্রতিটি চ্যানেলে ছেড়েছেন ১২ থেকে ২০ হাজার কাতল, গ্রাস কার্প, মৃগেল, রুই, তেলাপিয়া ও পাঙ্গাসের পোনা। এখান থেকে ৬শ বিঘা আয়তনের পুকুরের সমান পরিমাণ মাছ উৎপাদন হবে, আশা আকবরের। এই পদ্ধতিতে পুকুরের বর্জ্য অপসারণের ব্যবস্থা থাকায় অ্যামোনিয়া গ্যাস মুক্ত পরিবেশে মাছের রোগ বালাইও হয় কম।   

নবাব মৎস খামার প্রকল্পের সত্ত্বাধিকারী মোহাম্মদ আকবর হোসেন বলেন, সরকার যদি চাষীদের সহায়তা করে তাহলে এই পদ্ধতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে। আমরা এখন মাছ চাষে চার নম্বরে আছি, এই পদ্ধতি ছড়িয়ে পড়লে আমরা আরও সামনে এগিয়ে যেতে পারবো।

নদীর মাছের মতো স্বাদ আর অল্প জায়গায় বেশি উৎপাদন সম্ভব হওয়ায় এরইমধ্যে এই পদ্ধতি মাছ চাষীদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে বলে জানান জেলা মৎস কর্মকর্তা মোহাম্মদ আমিমুল এহসান। তিনি বলেন, এই পদ্ধতিতে প্রতি ঘনমিটারে একশ থেকে দুইশ কেজি মাছ চাষ সম্ভব। অন্য কোন বাণিজ্য পদ্ধতিতে যা সম্ভব না।
 
আকবরের মৎস্য খামারে কাজের সুযোগ পাচ্ছে অন্তত অর্ধশত বেকার। বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো শুরু হলেও ভারত, চীন ও পাকিস্তানসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে এই পদ্ধতিতে মাছ চাষ হচ্ছে।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ২১শে নভেম্বর, ২০২০


সর্বশেষ

আরও পড়ুন