• শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১
  • সকাল ৭:২৬

বরিশালে হাসপাতালের সামনে করোনা রোগীদের ব্যবহৃত বর্জ্যের স্তুপ

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যালের প্রবেশ পথে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রাখা হচ্ছে করোনা রোগীদের ব্যবহৃত বর্জ্য।

আর এসব বর্জ্য সংগ্রহ করে শহরের বিভিন্ন ভাঙারির দোকানে বিক্রি করছেন অনেকে। বিভিন্ন হাতঘুরে এগুলো আবার যাচ্ছে আশপাশের জেলাসহ ঢাকাতে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন-বর্জ্যগুলো নষ্ট না করলে এগুলো থেকে সহজেই করোনা সংক্রমিত হতে পারে।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রবেশের এই পথের খোলা জায়গাজুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে করোনা রোগীদের ব্যবহৃত নানা বর্জ্য।

করোনা আক্রান্তদের ব্যবহৃত পোষাক, পানির বোতল, সিরিঞ্জ, প্লাস্টিকসামগ্রী এভাবেই বস্তাবন্দি করে সংগ্রহ করছেন অনেকে।

ভ্যান-রিক্সায় শহরের বিভিন্ন সড়কঘুরে এগুলো বিক্রিও হচ্ছে ভাঙারির দোকানে। বরিশাল হয়ে এসব যাচ্ছে আশপাশের জেলাসহ ঢাকাতে।

আপদকালীন সময়ে এসব বর্জ্য মাটি চাপা দেয়া হয় জানিয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে দায়িত্বে অনিয়ম করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।  আর সিটি মেয়র বলছেন, বর্জ্য অপসারণের দায়িত্ব হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের।

বরিশাল শেরে ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক  ডাঃ এইচ এম সাইফুল ইসলাম বলেন,'মেডিক্যাল বর্জ্য আমরা মাটি চাপা দিয়ে ডাম্পিং এর কাজ করছি সব সময়ই।'

বরিশাল সিটি করপোরেশন মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ জানান,'মেডিক্যাল বর্জ্য মেডিক্যালের মধ্যেই ডেস্ট্রয় করতে হবে। এটা যদি আপনি শহরে নিয়ে যান তবে পুরো শহরবাসীকেই হুমকির মুখে ফেলা হবে।'

এসব বর্জ্য পুড়িয়ে ফেলা অথবা মাটি চাপা না দিলে যে কেউ সহজেই সংক্রমিত হতে পারে। এছাড়া, এগুলো পরিবেশের জন্য ভয়ঙ্কর বলছেন চিকিৎসকরাই।

শেবাচিম আউটডোর ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন সভাপতি ডা. সৌরভ সুতার বলেন, 'করোনা পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্ত রোগীর বর্জ্যগুলো তো মারাত্মক আকার ধারণ করবে এবং স্বাস্থ্যের জন্য এটা মারাত্মক ঝুঁকির কারণ হবে।'

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন-মেডিক্যাল বর্জ্য সব সময়ই বিপজ্জনক।  তার ওপরে তা যদি হয় করোনা ভাইরাসের। মানুষকে নিরাপদ রাখতে নিয়ম মেনে মেডিক্যাল বর্জ্য অপসারণের দাবি স্থানীয়দের। 

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ১৫ই এপ্রিল, ২০২১


সর্বশেষ

ঘটনাপ্রবাহ বিশ্লেষণঃ

আরও পড়ুন