• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১
  • দুপুর ৩:০০

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা: ৯ জেলায় গ্রেপ্তার ২০৪

সাম্প্রদায়িক সহিংসতা: ৯ জেলায় গ্রেপ্তার ২০৪
কুমিল্লা ও রাজধানীসহ ৯ জেলায় পূজামণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুর ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে লুটপাটের ঘটনায় এ পর্যন্ত ২৪টি মামলা হয়েছে। এসব ঘটনায় এ পর্যন্ত ২০৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

কুমিল্লার ঘটনায় রাজধানীতে জুম্মার নামাজের পর বায়তুল মোকাররমের আশপাশে ও মোহাম্মদপুরে সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কুমিল্লায় মণ্ডপে তাণ্ডবের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় ৪টি মামলা করেছে। এ পর্যন্ত ৪৩ জন আটক হলেও পরে ৩৯ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।  

নোয়াখালী চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে তিনজনকে শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। এ নিয়ে গ্রেপ্তার করা হলে মোট ৮০ জনকে। ভিডিও ফুটেজ দেখে মঙ্গলবার গভীর রাতে বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে বেগমগঞ্জ উপজেলার কাদিরপুর ইউনিয়নের আবদুল মালেকের ছেলে মো. ইলিয়াস, একলাশপুর ইউনিয়নের আবুল বাশারের ছেলে মিজানুর রহমান, গনিপুরের নুরনবী। এছাড়া পূজামন্ডপে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় জড়িত থাকায় একলাসপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে ।

এদিকে, এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মঙ্গলবার বিকেল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত আরো ৬ জনকে আটক করেছে র‌্যাব-১১। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, নিজাম উদ্দিন (৩৫), মো: রাসেল (৩২), আবদুল মোতালেব (৪৭), শাহাদাত হোসেন (৩৪), গোলাম কিবরিয়া (৩২), আনোয়ারুল আজিম (৪০)। তারা প্রত্যেকেই বেগমগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা।

এ বিষয়ে নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম জানান, চৌমুহনীতে বিভিন্ন পূজামন্ডপে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এ পর্যন্ত মোট ৮০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকী আসামিদের গ্রেপ্তার  অভিযান অব্যাহত আছে।

চট্টগ্রামের জেএমসন হলে পূজামণ্ডপে হামলায় শতাধিক ব্যক্তির নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতদের আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়েছে ৭০ জন।

চাঁদপুরে হামলার ঘটনায় তিন মামলায় আসামি দুই হাজারের বেশি। এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার ৭ জন।  

কক্সবাজারের পেকুয়ায় হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে একটি ও এক ভুক্তভোগী বাদী হয়ে ২টি মামলা করেছেন। গ্রেপ্তার হয়েছে ৯ জন।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে হামলা ও আগুনের ঘটনার ৪ মামলায় দুই বিএনপিকর্মী ও ইসলামী আন্দোলনের দুইজনসহ ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া ও কমলগঞ্জে হামলার ঘটনায় ৫টি মামলা হয়েছে। এ পর্যন্ত আটক হয়েছে দুইজন।

সিরাজগঞ্জ জেলখানা ঘাটে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেছে। গ্রেপ্তার হয়েছে ১২ জন। অন্যদিকে, খুলনার মহাশ্মশান মণ্ডপের গেট থেকে ১৮ হাতবোমা উদ্ধারের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত মামলা হয়নি।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ২০শে অক্টোবর, ২০২১


সর্বশেষ

আরও পড়ুন