• শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
  • দুপুর ৩:০৮

সমন্বিত কর্তৃপক্ষ না থাকায় ঢাকার যানজট কমেনি, বাস্তবায়িত হয়নি বেশিরভাগ সুপারিশ

সমন্বিত কর্তৃপক্ষ না থাকায় ঢাকার যানজট কমেনি, বাস্তবায়িত হয়নি বেশিরভাগ সুপারিশ
বিভিন্ন সময়ে সরকারের একাধিক সংস্থা, কর্তৃপক্ষ যানজট কমাতে নানা সুপারিশ করলেও, বেশিরভাগই বাস্তবায়িত হয়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যানজটের মতো জটিল বিষয় নিরসনে এখন পর্যন্ত কোনো সমন্বিত কর্তৃপক্ষ না থাকাই এর কারণ।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পুলিশ সদর দফতরের দাখিল করা গবেষণা প্রতিবেদনে যানজটের ১৯টি কারণ উল্লেখ করা হয়। যানজট থেকে বাঁচতে স্বল্পমেয়াদী- মধ্যমেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী বেশকিছু সুপারিশ তুলে ধরা হয়।

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা ও শৃঙ্খলার উন্নয়নে তাদের দেয়া  ২৯টি কর্মপরিকল্পনায় রয়েছে বাস স্টপেজ উন্নতকরণ, অনস্ট্রিট পার্কিং, রোড ডিভাইডার ঊর্ধ্বমুখী, গণপরিবহনে শৃঙ্খলা, বাস রুট ফ্রাঞ্জাইজ করা।

ডিএমপি'র অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মফিজউদ্দিন আহমেদ জানান, 'বাসগুলো নির্দিষ্ট স্টপেজে দাঁড়ানো, দরজা বন্ধ করে চলা, যেখানে সেখানে না দাঁড়ানো, রাস্তাকে হবার মুক্ত করা, ফুটপাতগুলো পরিস্কার রাখা এই সকল বিষয়ের ওপর আমরা প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছি।'

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সাব-কমিটির আছে ১৮ দফা সুপারিশ। এরমধ্যে  ভিআইপিদের যাতায়াত নিয়ন্ত্রণ, গাড়ি পার্কিংয়ে নতুন আইন করা, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান স্থানান্তর, রাস্তা সম্প্রসারণ ও বিকল্প রাস্তা নির্মাণ, ক্রসিং বন্ধ করতে ইউ আকৃতির গাড়ি পারাপার সেতু ইউলুপ তৈরি উল্লেখযোগ্য।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যানজটের মতো জটিল বিষয় নিরসনে এখন পর্যন্ত কোনো সমন্বিত কর্তৃপক্ষ না থাকায় এসব সুপারিশ বাস্তব রুপ লাভ না করার অন্যতম কারণ। এ প্রসঙ্গে নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, 'অনেকগুলো সংস্থা বিপরীতমুখী অথবা পারস্পারিক সাংঘর্ষিক যে বিষয়গুলো রয়েছে তার সুরাহায় একটি কঠোর সমন্বয়কারী দরকার। যার সমন্বয়ে সকলে জন আকাঙ্খাকে প্রাধান্য দিতে বাধ্য হবে।'

আগামী ২০ বছরে ঢাকার জনসংখ্যা বাড়বে ৫৫ শতাংশ। পাল্লা দিয়ে বাড়বে যানজট ও যানবাহনও।  নগরবাসীর দৈনিক যাতায়াত বাড়বে প্রায় ৭১ শতাংশ, যা রাজধানীতে যানজটের তীব্রতা বাড়াবে দ্বিগুণ।

পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে ঢাকায় আগামী ২০ বছরে 5 মেট্রোরেল, দুটি বাস রেপিড ট্রানজিট বিআরটি, নতুন কয়েকটি সড়ক ও এক্সপ্রেসওয়েও তৈরি করা হবে। যা এসটিপি সংশোধন সংক্রান্ত দ্বিতীয় পরবর্তী প্রতিবেদনে সুপারিশ করা হয়েছে।

ওগুলো বাস্তবায়ন করতে লাগবে প্রায় ২ হাজার ৫৬ কোটি ডলার বা ১ লাখ ৫৯ হাজার ৮৯৫ কোটি টাকা। তবে তা কোনো কাজে আসবে না বলে মত বিশেষজ্ঞদের। পরিবহণ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক শামসুল হক বলেন, 'দৃশ্যমান উন্নয়ণের জন্য যে পরিকল্পিত মেট্রো হবার কথা সেটা আমাদের এখানে হচ্ছে না।' এই অবস্থায় কবে নাগাদ যানজট নিরসন সম্ভব হবে তা স্পষ্ট নয়। 

ডেস্ক
বুলবুল রেজা
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ১৪ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০
আপডেটঃ বৃহঃস্পতিবার, ২৭শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ০৯:৫৫


সর্বশেষ

আরও পড়ুন