• বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১
  • সকাল ৭:০৪

সেহেরি আয়োজনে ঢাকার বাসিন্দাদের ব্যস্ত সময়

রমজান মাসে মধ্যরাতে সেহেরি আয়োজনে ব্যস্ত সময় পার করেন রাজধানীবাসী। রমজানে বিভিন্ন এলাকাতেও বসে ভ্রাম্যমান হোটেল, যেখানে সেহেরি খায় শ্রমজীবিরা। বলা হচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খোলা রাখা হয়েছে হোটেল।

বছর ঘুরে আসে মাহে রমজান। পবিত্র এই মাস আসলেই রোজা রাখা ও ইবাদত বন্দেগীতে মশগুল হয় ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা। আর রোজা রাখার প্রস্তুতির অন্যতম অনুষঙ্গ সেহেরি। 

ঢাকার বিভিন্ন বাসাবাড়িতে সেহেরির জন্য রাতে বেড়েছে ব্যস্ততা। অনেক বাড়িতেই মধ্যরাতে চলে রান্নার কাজ। বড়দের পাশাপাশি রাত জেগে সেহেরী খাচ্ছে শিশুরাও। 

তারা জানায়, এটা আলাদা একটা আনন্দ। সবাই মিলে সেহরি খাওয়ার মধ্যে অন্যরকম আনন্দ কাজ করে। সেহরি রান্না করতেও আমাদের ভালো লাগা কাজ করে। এই একটা মাসই আমরা সুযোগটা পাই, কাজটা উপভোগও করি।

করোনার কারণে রাজধানীর বেশিরভাগ হোটেলই বন্ধ। তবে বিভিন্ন এলাকায় বসেছে ভ্রাম্যমান হোটেল। দামে সস্তা হওয়ায় যেগুলোতে সেহেরি খেতে আসে শ্রমজীবি ও ব্যবসায়ীরা। 

হাদিসে বর্ণিত আছে, 'যে ব্যাক্তি ঈমান ও ইহতিসাবসহ রমজান মাসের সিয়াম পালন করবে , তার পূর্ববর্তী ও পরবর্তী গুনাহ মাফ করে দেয়া হবে।'

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ১লা মে, ২০২১


সর্বশেষ

আরও পড়ুন