• বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১
  • সকাল ৮:৩৮

১৮ই মার্চ থেকে ১৪ই এপ্রিল বই মেলা: বড় চ্যালেঞ্জ হবে ঝড়-বৃষ্টি

১৮ই মার্চ থেকে ১৪ই এপ্রিল বই মেলা: বড় চ্যালেঞ্জ হবে ঝড়-বৃষ্টি
১৮ই মার্চে শুরু হয়ে অমর একুশে গ্রন্থমেলা চলবে ১৪ই এপ্রিল পর্যন্ত। ঝড়-বৃষ্টির সময় এই আয়োজন রীতিমত চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াবে, বলছে আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি। তাই মেলার স্টল নিয়ে ভাবা হচ্ছে ভিন্নভাবে।
সংবাদ সম্প্রসারন

বাঙালির প্রাণের মেলা- অমর একুশের বই মেলা। এবার বাধ সেধেছিল করোনা। শেষ পর্যন্ত কিছু বিধি নিষেধের মধ্য দিয়ে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলা একাডেমি। লেখক প্রকাশক আর পাঠকদের মাঝে এসেছে স্বস্তি। শেষ মুহুর্তে চাপ বেড়েছে ছাপাখানার ওপর। 

অধুনা প্রিন্টার্স এর মো. সোলায়মান বলেন,এবার তো হঠাৎ সিদ্ধান্ত তাই আমাদের একটু চাপ পড়েছে। তবে আমরা মেলা শুরুর আগেই সব কাজ শেষ করতে পারবো বলে আশা করছি।

ফেব্রুয়ারিতে বইমেলা হচ্ছে এরকমটা ধরে প্রস্তুতিও নিয়েছিলো অনেক প্রকাশক। ফলে এরমধ্যে বেশ কিছু নতুন বই বাজারে চলেও এসেছে। তারপরেও বইমেলার সার্বিক প্রস্তুতি ও পাঠক উপস্থিতি নিয়ে আশাবাদী তারা। তবে শঙ্কা উঁকি দিচ্ছে বৈশাখের আবহাওয়া। 

অন্যপ্রকাশের ব্যবস্থাপক শাহিদুল কবির বলেন,একদিকে করোনা মহামারি অন্যদিকে মার্চ মাসের গরম। আর ওই সময়ের আবহাওয়াও বইমেলার জন্য অনুকূল নয়। এবারের মেলা যে খুব একটা সফল হবে তা আমরা মনে করতে পারছি না।

বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমদ বলেন, এবারের মেলা কিন্তু প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যেও পড়ে যেতে পারে। সুতরাং এবারের বইমেলা একটা চ্যালেঞ্জিং হবে আমাদের জন্য। সেই রকম পূর্ব প্রস্তুতি নিয়েই আমাদের মেলাটি শুরু করতে হবে।

মূলধারার বাইরে নতুন লেখক তৈরির সুযোগ এবার কমতে পারে বলে মনে করছেন নবীন লেখকরা।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবারের বইমেলার পরিসর বাড়ানোর কথা ভাবছে বাংলা একাডেমি। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, এবারের বইমেলা যেহেতু মার্চ মাসে শুরু হয়ে এপ্রিলে শেষ হবে। এতে কালবৈশাখীর প্রভাব থাকবে। আমরা করোনার সঙ্গে সঙ্গে পরিবেশ-প্রকৃতি এবং আবহাওয়ার কথাটা মাথায় রেখেই ব্যবস্থাপনার কাজ করবো।

স্কুল কলেজ বন্ধ থাকলেও প্রতিবছরের ন্যায় এবারও থাকবে শিশু প্রহরের আয়োজন।

ডেস্ক
ডিবিসি নিউজ
প্রকাশিতঃ ২৬শে জানুয়ারী, ২০২১
আপডেটঃ সোমবার, ১লা মার্চ, ২০২১ দুপুর ১২:৩০


সর্বশেষ

মানচিত্র

আরও পড়ুন